ঝিনাইদহের বাজারগোপালপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ

বাজারগোপালপুর প্রতিনিধি: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক শাহাবুদ্দিন অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে গণপিটুনির শিকার হয়েছেন। এলাকাবাসী প্রথমে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে দেয়। পরে সালিসে ১৮ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দেয়া হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গত রোববার বাজারগোপালপুর হাসপাতাল রোডের রেজাউল ইসলামের ছাত্রাবাসে। শাহাবুদ্দিন কোটচাঁদপুর উপজেলার সাফদারপুর গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে।

অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, শিক্ষক শাহাবুদ্দিন চুয়াডাঙ্গা রেলস্টেশনপাড়ার সেলিনাকে বিয়ের অশ্বাস দিয়ে প্রেম করে আসছিলেন। গত রোববার শিক্ষক শাহাবুদ্দিন সেলিনাকে বিয়ে করবেন বলে মোবাইলফোনে জানান। প্রেমিকের ফোন পেয়ে চুয়াডাঙ্গা থেকে ছুটে আসেন সেলিনা। সন্ধ্যায় তারা অসামাজিক কাজে লিপ্ত হলে স্থানীয় জনগণ হাতেনাতে ধরে গণপিটুনি শেষে পুলিশে দেয়। পরে ১৮ হাজার টাকা জরিমানা দিয়ে শাহাবুদ্দিন মুক্তি পান। শাহাবুদ্দিনের সাথে আটক সেলিনা জানান, তিনি চুয়াডাঙ্গার একটি ক্লিনিকের সেবিকা। এ বিষয়ে বাজারগোপালপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মঈন উদ্দীন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। গতকাল শাহাবুদ্দিন শ্রেণিকক্ষে ক্লাস নিতে গেলে ছাত্রছাত্রীরা ক্লাস বর্জন করে চলে যায়। সেলিনা জানান, শাহাবুদ্দিন বিয়ে করবে বলে আংটি বদল করে এবং তাকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন। এলাকাবাসী এই শিক্ষকের শাস্তির দাবি করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.