চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস পালন : স্লোগান

বাঁধ ভাঙো, দুয়ার খোলো

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: ‘বাঁধ ভাঙো, দুয়ার খোলো’ স্লোগানকে সামনে রেখে চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস পালন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার পৃথক পৃথকভাবে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে র‌্যালি, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

চুয়াডাঙ্গায় গতকাল মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ও জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস-২০১৩ পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি সদর উপজেলা পরিষদ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। এরপর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনাসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক (অ.দা.) মো. ছানোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসাইন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নবাগত পুলিশ সুপার রাশিদুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মল্লিক সাঈদ মাহবুব, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল আমিন ও মেডিকেল অফিসার ওয়াহিদ মাহমুদ রবিন।

অনুষ্ঠানে সঙ্গীত, গজল, কোরআন তেলাওয়াতসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ৩০ জনকে পুরস্কৃত করা হয় এবং ১০০ জনকে সান্ত্বনা পুরস্কার দেয়া হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, প্রতিবন্ধীদের জন্য সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান কাজ করে যাচ্ছে। এদেরকে মূলধারায় নিয়ে আসতে হলে সমাজের বিত্তবানদেরকে এগিয়ে আসতে হবে।’

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে,  আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে মেহেরপুর জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উদ্যোগে আলোচনাসভা ও র‌্যালির আয়োজন করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার সকালে মেহেরপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গণে মেহেরপুর জেলা সমাজসেবা অধিদফতরের উপপরিচালক আবু বকর সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা এসএম শফিউল আযম, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মশিউর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলহাজ মো. আশকার আলী, মুজিবনগর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা তৌফিকুর রহমান, শহর সমাজসেবা অফিসার ফারুকুল ইসলাম, প্রতিবন্ধী সমাজ কল্যাণ অফিসার মোস্তাফিজুর রহান, সেভ দ্যা প্লানেটে অ্যান্ড ডিজ অ্যাবিলিটির নির্বাহী পরিচালক আইউব নবী মোল্লা প্রমুখ।

ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে র‌্যালি, আলোচনাসভা, দিনব্যাপি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় এইড কমপ্লেক্স থেকে র‌্যালি বের হয়ে মডার্ণ মোড় হয়ে  এইড কমপ্লেক্স মিলনায়তনে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ আমিনুর রহমান টুকুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সরকারি কে.সি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আব্দুল বাছিত মিঞা। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন এইড’র চেয়ারপারসন প্রধান নির্বাহী তারিকুল ইসলাম পলাশ। এসএলএফ নেদারল্যান্ডস’র সহযোগিতায় এইডের বাস্তবায়নে প্রক্লপ সম্পর্কে অবগত করেন প্রতিবন্ধী শিশু পুনর্বাসন কর্মসূচির উপকর্মসূচি সমন্বয়কারী সুরাইয়া পারভীন শিল্পী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুলকার নায়ন, মডার্ণ ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাইরুল বাশার, সরকারি নুরুন্নাহার মহিলা কলেজের (অবঃ) প্রাপ্ত উপাধ্যাক্ষ এনএম শাহজালাল, হরিণাকুণ্ডু সহকারি লালন শাহ ডিগ্রি কলেজের অধ্যাপক এহতেশামুল হক নতুন। বক্তব্য রাখেন উপপরিচালক (কর্মসূচি) আশাবুল হক, উপপরিচালক প্রশাসন আব্দুর রশীদ, বুলু রানী, আফরোজা বেগম, সাহন, সুজন, আনোয়ারা, জিনিয়া প্রমুখ। সভা শেষে চিত্রাঙ্ক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের প্রতিযোগিদের মধ্যে প্রধান অতিথি ও অতিথিগণ প্রতিবন্ধী শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। পরিচালনা করেন শফিক আকরাম।

হরিণাকুণ্ডু প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস-২০১৩ পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সকাল ১১টায় স্থানীয় বেসরকারি সমাজ কল্যাণ সংস্থা উলাসী সৃজনী সংঘ ও সমাজসেবা অধিদপ্তরের উদ্যোগে এবং অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের সহযোগিতায় একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে স্থানীয় বিআরডিবি মিলনায়তনে আলোচনাসভায় মিলিত হয়। সহকারী উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের অস্থায়ী চেয়ারম্যান সাজেদুল ইসলাম টানু মল্লিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন আক্তার, জোড়াদহ কলেজের অধ্যক্ষ শরিফুল ইসলাম ও মান্দিয়া কলেজের অধ্যক্ষ রবজেল হোসেন। বক্তব্য রাখেন উলাসী সৃজনী সংঘের প্রকল্প সমন্বয়কারী নাজমুল হক। স্পন্সর অফিসার তাজিমউদ্দিনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন প্রতিবন্ধী প্রতিনিধি শফি উদ্দিন ও নিজাম উদ্দিন আহমেদ। র‌্যালি ও আলোচনাসভাটির সার্বিক সহযোগিতাই ছিলেন সামিরুল ইসলাম ও মঈনুদ্দিন আহমেদ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *