চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ সারাদেশে আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গসংগঠনসমূহের নেতাকর্মীরাও রাজপথে

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল

 

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার পরপরই আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগসহ অঙ্গসংগঠনসমূহ। তফশিলকে স্বাগত জানিয়ে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ দেশের অধিকাংশ স্থানেই মিছিল করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ পৃথক স্থান থেকে পৃথকভাবে মিছিল বের করে। শহীদ হাসান চত্বরে ছাত্রলীগের মিছিলটি পুলিশি বাধার মুখে পড়লে প্রিন্সপ্লাজা থেকে ঘোরার শর্তে ছেড়ে দেয়া হয়। পুলিশ বলেছে, সংঘর্ষের আশঙ্কায় বাধা দেয়া হয়।

চুয়াডাঙ্গা আওয়ামী লীগের মিছিলটি দলীয় কার্যালয় থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পৌরসভায় গিয়ে শেষ হয়। এ মিছিলের নেতৃত্ব দেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান ও পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক খুস্তার জামিল, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি আফজালুল হক প্রমুখ। বক্তব্য রাখেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান, পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, যুবলীগের আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জু ও কলেজছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক তানিম হাসান তারিক। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন যুবলীগ নেতা আব্দুল কাদের।

অপরদিকে ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফ হোসেন দুদুর নেতৃত্বে কেদারগঞ্জপাড়া থেকে আনন্দ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ হাসান চত্বরে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে। প্রিন্সপ্লাজা থেকে ঘুরে শহীদ হাসান চত্বরের সমাবেশে  বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসম্পাদক হাবিবুর রহমান লাভলু, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফ হোসেন দুদু প্রমুখ। এ সময় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ( ….. পাতায় … কলামে দেখুন)

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার উদ্যোগে আগামী ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা উপলক্ষে আনন্দ মিছিল ও সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. শরীফ হোসেন দুদুর নেতৃত্বে স্থানীয় শহীদ হাসান চত্বর থেকে আনন্দ মিছিলটি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাসান চত্বরে শেষ হয়। ওই স্থানে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ শুরু হয়। বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি আলী আহমেদ, যুগ্মসম্পাদক হাবিবুর রহমান লাভলু  যুব ক্রীড়া সম্পাদক অ্যাড. শফি, ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইছাহক আলী, ৯ নং ওয়ার্ডের সভাপতি সোহরাব আহমেদ, অ্যাড. ফিরোজ, জেলা যুবলীগের মিলন, রাজ্জাক, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা মতি, লাল্টু, ভুলন, শিমু, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি শরিফ উদ্দীন, মেহেদী, যুগ্মসম্পাদক ফরিদ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ফরিদ আহমদ, সাবেক কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক কালু, সদর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক সুমন রেজা, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি জাবিদ, সাধারণ সম্পাদক সজল, কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জানিফ। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা রাজা, সিহাব, খালেক, মধু, আজগার, শান্তি, সজল, হালিম, ইমরান, আলামিন, মাফি, তাপু, তাওরাত, হাসান, মন্টা, রুবেল, জাহাঙ্গীর, জ্যাকি, বিপ্লব, জনি, হাসিবুল প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা বলেন, আগামী ১০ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা কায় প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ সকল কর্মকর্তাকে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানাই। সেইসাথে আবারো বিরোধীদলকে সর্বদলীয় সরকারে যোগ দিয়ে জনগণকে সুন্দর নির্বাচন উপহার দেয়ার আহ্বান জানান এবং জেলা ছাত্রলীগের সকল ইউনিটকে একত্রিত হয়ে আগামী নির্বাচনে জয়লাভ করার জন্য কাজ করার উদ্যাত্ব আহ্বান জানান। সমাবেশটি পরিচালনা করেন জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রিংকু হোসেন জোয়ার্দ্দার।

দর্শনা অফিস জানিয়েছে, দর্শনায় আ.লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট আনন্দ মিছিল করেছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যার পর দর্শনা পৌর আ.লীগের কার্যালয় থেকে মিছিল বের করে তারা। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে পৌর আ.লীগের কার্যালয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। উপস্থিত ছিলেন দর্শনা পৌর আ.লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলী, আ.লীগ নেতা গোলাম ফারুক আরিফ, আতিয়ার রহমান হাবু, ইদ্রিস আলী, বিল্লাল হোসেন, ইস্রাফিল হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, বদরুল আলম ফিট্টু, যুবলীগ নেতা আব্দুল হান্নান ছোট, শেখ আসলাম আলী তোতা, আশরাফুল আলম বাবু, ইকবাল হোসেন, ফারুক আহম্মেদ, জয়নাল আবেদীন নফর, মামুন শাহ, সোলায়মান, ফয়সাল, লাল্টু, সাজাহান, হাকিম, ছাত্রলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম ববি, নাহিদ পারভেজ, লোমান, রবিউল, রেজাউল, বাদল, শরীফ, হাসান প্রমুখ।

ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা শহরের পায়রা চত্বর থেকে আনন্দ মিছিল বের করে। শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে গিয়ে সমাবেশ করে নেতাকর্মীরা। সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ভাইস জেএম রশিদুল আলম রশীদসহ মহাজোটের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গায় আওয়ামী লীগ আনন্দ মিছিল করেছে। গতরাত পৌনে ৮টার দিকে বের হওয়া মিছিলটি নির্বাচনের সমর্থনে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক দক্ষিণ করে আওয়ামী লীগের দলীয় অফিসে শেষ হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসান কাদির গনু, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী খালেদুর রহমান অরুন, আলম হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি প্রশান্ত অধিকারী, উপজেলা আওয়ামী লীগের ক্রীড়া সম্পাদক মহিদুল ইসলাম মহিদ, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু মুসা, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ইন্দ্রজিত দেব শর্মা, বন ও পরিবেশ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম মনি, আওয়ামী লীগ নেতা হামিদুল ইসলাম আজম, তাকারক হোসেন, স্মরণ আলী, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা মহত আলী, পিয়ার মোহাম্মদ কচি, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আজিজুল হক, উপজেলা যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক সাজ্জাদুল ইসলাম স্বপন, পৌর যুবলীগের সভাপতি আব্দুল গাফফার, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন সোনাহার, ডিটু, মনা, আরিফ, ছাত্রলীগ নেতা সনি, রানা, সাদ্দাম প্রমুখ।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, গতকাল সোমবার সন্ধ্যারাতে মেহেরপুর জেলা যুবলীগ শহরে আনন্দ মিছিল করেছে। রাত পৌনে ৮টার দিকে জেলা জেলা যুবলীগের সভাপতি সাজ্জাদুল আনামের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিলটি শহরের বড়বাজারস্থ অস্থায়ী কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে হোটেলবাজার ৩ রাস্তার মোড়ে শেষ হয়। জেলা যুবলীগের সভাপতি সাজ্জাদুল আনামের সভাপতিত্বে এ সময় সেখানে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুল আলম সাজ্জাদ, যুগ্মসম্পাদক মাসুদ খান লিংকন, নিশান সাবের, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান হিরণ, মাহফিজুর রহমান মাহবুব, সদর থানা যুবলীগের সম্পাদক আল মামুন, শহর যুবলীগের সভাপতি শেখ কামাল, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম,  যুবলীগ নেতা আহসানুর রহমান গোপাল প্রমুখ।

মেহেরপুর অফিস আরও জানিয়েছে, জেলা ছাত্রলীগ শহরে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। গতকাল সোমবার রাত ৮টার দিকে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বারিকুল ইসলাম লিজনের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিলটি শহরের হোটেল বাজার এলাকা থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে হোটেল বাজার ৩ রাস্তার মোড়ে এক সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মেহেরপুর সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মো. গোলাম রসুল। সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মফিজুর রহমান মফিজ, সদর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম আনন্দ, শহর ছাত্রলীগের সভাপতি মাহফিজুর রহমান পোলেন, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ, সাধারণ সম্পাদক কুদরুত-ই খোদা রুবেল প্রমুখ।

গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মেহেরপুর গাংনী শহরে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ। গতকাল সোমবার রাত ৮টার দিকে গাংনী পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা আহম্মেদ আলীর নেতৃত্বে বাসস্ট্যান্ড থেকে মিছিলটি শুরু হয়। শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে হাসপাতাল বাজারে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় জামায়াত-বিএনপিবিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দেয়া হয়। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মজিরুল ইসলাম, গাংনী পৌর ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান ডাবু, ২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলেহীম, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি ক্লাবের সভাপতি আশিকুর রহমান আকাশ, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মিলন, উপজেলা বঙ্গবন্ধু ফউন্ডেশন লীগের সহসভাপতি জিনারুল ইসলাম দিপু, আব্দুল জব্বার ও শামীম হোসেন এবং ডিগ্রিকলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বলসহ নেতৃবৃন্দ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *