চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরসহ সারাদেশে বিএনপির কালোপতাকা নিয়ে মিছিল সমাবেশ

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুরসহ দেশের অধিকাংশ স্থানেই বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট গতকাল সোমবার কালোপতাকা নিয়ে মিছিল সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেছে। নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়কের অধীনে নির্বাচন দেয়ার বদলে নতুন মন্ত্রীপরিষদ গঠনের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে কালো পতাকা নিয়ে মিছিল ও সমাবেশ করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপি, ছাত্রদল, বিএনপি একাংশ ও মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সমর্থকরা পৃথক সময়ে পৃথক স্থান থেকে মিছিল বের করে। জাহাঙ্গীর আলমের সমর্থকদের মিছিলটি শুরুতেই পুলিশি বাধার মুখে পড়ে। অন্য মিছিলগুলোর সামনেও আড় হয়ে দাঁড়ায় পুলিশ। মেহেরপুরে মাসুদ অরুণের নেতৃত্বে অভিন্ন কর্মসূচি পালনের খবর পাওয়া গেছে।

পদত্যাগী মন্ত্রীদের নিয়ে মন্ত্রীসভার বৈঠকের প্রতিবাদে গতকাল চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির উদ্যোগে বিকেল ৪টায় কালো পতাকা মিছিল দলীয় কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিল শেষে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তারা বলেন, পদত্যাগী মন্ত্রীদের দায়িত্ব পালন প্রজাতন্ত্রের সংবিধানের গুরুতর লংঘন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত করার জন্য সংবিধানকে পাশ কাটিয়ে স্বঘোষিত সর্বদলীয় মন্ত্রী পরিষদ গঠন করে এবং তিনি তার প্রধান হয়ে পাতানো নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের বৃহত্তর রাজনৈতিক দল বিএনপি তথা ১৮ দলীয় জোটকে বাদ দিয়ে ক্ষমতায় আসার নীল নকশা আঁকছেন কিন্তু তার এ কুচক্রী স্বপ্নকে বাংলার সাধারণ মানুষ বাস্তবায়ন হতে দেবে না। যেকোনো মূল্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গণআন্দোলনের মাধ্যমে জনতা এ হীন ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করবে।

জেলা বিএনপির সহসভাপতি এম জেনারেল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক শেখ সাইফুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. আ.স.ম আব্দুর রউফ, সদর পৌর বিএনপির সভাপতি শহিদুল ইসলাম রতন, সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মন্টু, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মজিবুল হক মালিক মজু, দামুড়হুদা থানা বিএনপির সভাপতি লিয়াকত আলী শাহ, আলমডাঙ্গা পৌর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইসরাফ হোসেন, আলমডাঙ্গা থানা বিএনপির সহসভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার, আলমডাঙ্গা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান পিন্টু, সদর থানা বিএনপির সহসভাপতি মনিরুজ্জামান মনি, জেলা যুবদলের যুগ্মআহ্বায়ক মোকাররম হোসেন, জেলা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক সাবু তরফদার, সদর পৌর বিএনপির সহসভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, যুগ্মসম্পাদক গোলাম মোস্তফা বিমান, রবিউল ইসলাম লিটন, জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শরিফ উর জামান সিজার, সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য এমএ তালহা, যুগ্মআহ্বায়ক মঞ্জুরুল জাহিদ, রাজিব খান, সুজন মালিক প্রমুখ।

এদিকে গতকাল সকাল সাড়ে ১১টায় বিএনপি কার্যালয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদলের জরুরি প্রতিবাদসভা আহ্বান করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক শরিফ উর জামান সিজার। সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্মআহ্বায়ক ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য এমএ তালহা, যুগ্মআহ্বায়ক মঞ্জুরুল জাহিদ, জাহেদ মো. রাজিব খান, সোহেল আহম্মেদ মালিক সুজন। সভায় বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার যে সাংবিধানিক সঙ্কট সৃষ্টি ও যে নীল নকশা নির্বাচন, ফ্যাঁসিবাদ বাকশালী একদলীয় যে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে তা এদেশের ছাত্রসমাজ ও জনতা তার দাঁত ভাঙা জবাব দেবে।

একই সাথে গত রোববার রাতে সদর থানা ছাত্রদলকর্মী ৪ নং ইউনিয়ন যুগ্মআহ্বায়ক খন্দকার রিজন আহম্মেদকে পুলিশ জামায়াতে ইসলামের ২০১২ সালের পেন্ডিং মামলায় বাসা থেকে গ্রেফতার করে। ছাত্রশিবিরের কর্মী হিসেবে পুলিশের এ ধরনের অন্যায় গ্রেফতার, ছাত্রদলের ছেলেদের ছাত্রশিবির হিসেবে গ্রেফতার, মিথ্যা মামলা দেয়ায় চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদল পুলিশের এহেন কর্মকাণ্ডকে ধিক্কার, তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। এ ধরনের মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করতে থাকলে চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রদল কঠিন কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে। অবিলম্বে খন্দকার রিজন আহম্মেদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানায় তারা। সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ।

অপরদিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা ও পৌর ১৮ দলীয় জোটের ব্যানারে স্থানীয় বিএনপির একাংশ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে। এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিক্ষোভ মিছিলটি কোর্ট মোড় থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় কোর্ট মোড়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন চুয়াডাঙ্গা পৌর ১৮ দলীয় জোটের আহ্বায়ক সিরাজুল ইসলাম মনি। বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির  সহসভাপতি সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. এমএম শাহাজাহান মুকুল। বিশেস অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি জীবননগর পৌর মেয়র হাজি নওয়াব আলী, জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক মাহামুদুল হক পল্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক রউফুন নাহার রীনা, দফতর সম্পাদক আবু আলা সামছুজ্জামান, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. হেদায়েত হোসেন আসলাম, চুয়াডাঙ্গা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুল্লা জোয়া. ছটি, পৌর জামায়াতে ইসলামীর সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাসুদ পারভেজ রাসেল, দামুড়হুদা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, দর্শনা পৌর বিএনপির সভাপতি রহম আলী, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল ইসলাম খোকন, জেলা বিএনপির পরিবেশ ও বন বিষয়ক সম্পাদক ইদ্রিস আলী, জীবননগর পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক তাজুল ইসলাম, জীবননগর পৌর বিএনপির সভাপতি মশিউর রহমান, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক খালিদ মাহমুদ মিল্টন, সদস্য সচিব সাইফুর রশিদ ঝন্টু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক হাজি আব্দুল মান্নান, জেলা ছাত্রদলের যুগ্মআহ্বায়ক শাহাজাহান খান, জেলা ওলামাদলের আহ্বায়ক মাও. আনোয়ার হোসেন, জীবননগর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা আক্তার রিনী প্রমুখ।

এদিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মনোনয়ন প্রত্যাশী জাহাঙ্গীর আলমের অনুসারীরা গতকাল কালোপতাকা নিয়ে মিছিল বের করে। মিছিলটি কোর্টমোড়স্থ অস্থায়ী কার্যালয় থেকে বের হলে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে। মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন জেলা মৎস্যজীবী দলের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় মৎস্যজীবী দলের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক বকুল। এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মিছিলটি পুলিশি বাধার মুখে পড়লে অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বিএনপি নেতা আইনুর হোসেন পচা সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান হবি। বিশেষ অতিথি ছিলেন আরশেদ আলী কালু, চুয়াডাঙ্গা জেলা মৎস্যজীবী দলের সেক্রেটারি অহিদুল ইসলাম ওহিদ, কৃষদল নেতা হামিদুল হক নেতাজী, পৌর বিএনপি নেতা আজাদুল ইসলাম আজাদ।

ঝিনাইদহ অফিস জানিয়েছে, সর্বদলীয় সরকারের নামে প্রহসনমূলক মন্ত্রীসভা গঠনের প্রতিবাদে গতকাল সোমবার দুপুরে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির উদ্যোগে কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করো দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে ঝিনাইদহ শহরের পুরাতন ডিসিকোর্ট চত্বর থেকে মিছিলটি বের হয়ে পায়রা চত্বর মোড়ে এসে পৌঁছুলে পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় বিএনপির নেতা-কর্মীদের প্রতিরোধের মুখে পুলিশ সরে যেতে বাধ্য হয়। মিছিল শেষে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে সামনে এক সমাবেশে জেলা বিএনপি। জেলা বিএনপির সহসভাপতি আব্দুল মতলেব মিয়ার সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সভাপতি মো. মসিউর রহমান।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, সংবিধান লংঘন করে পদত্যাগী মন্ত্রীসভার বৈঠকের প্রতিবাদে গতকাল সোমবার বিকেল ৩টায় পৌর টাউন হলপ্রাঙ্গণে মেহেরপুর জেলা বিএনপির উদ্যোগে সাবেক এমপি বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মাসুদ অরুনের নেতৃত্বে কালো পতাকা মিছিল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাসের সভাপতিত্বে মিছিলপূর্বক অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাসুদ অরুন বলেন, সংবিধান লংঘন করে সর্বদলীয় সরকারের নামে প্রহসন জনগণ মানবে না। জনগণের সংগ্রামের মধ্যদিয়ে এ অবৈধ সরকারের পতন ঘটানো হবে। তিনি বলেন, সাজানো নির্বাচনে জনগণ অংশ নেবে না। নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে সরকারকে বাধ্য করা হবে। সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহসভাপতি আব্দুর রহমান, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওবাইদুল্লাহ সেন্টু, মুজিবনগর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুদ্দিন বিশ্বাস, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক আব্দুর রহিম, মুজিবনগর উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রশিদ প্রমুখ। সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্মসম্পাদক মাহবুবুর রহমান, সদর উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি শহিদুল আলম, জেলা তাঁতীদলের সভাপতি আরজুল্লাহ মাস্টার বাবলু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা দলের সদস্য সচিব রাইহানুল কবীর, জেলা যুব বিষয়ক সম্পাদক হাজি ফজলু খান, জেলা তাঁতীদলের সহসভাপতি আবু সুফিয়ান হাবু, পৌর বিএনপি নেতা পৌর কাউন্সিলর মনিরুল ইসলাম মনি (১), পৌর কাউন্সিলর মনিরুল ইসলাম মনি (২), পৌর বিএনপি নেতা হাবীব ইকবাল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্মসম্পাদক তোফায়েল আহমেদ, আজিমুদ্দিন গাজী, ফয়জুল কবীর, জেলা ছাত্রদল নেতা আহমেদ রাজিব খান, সোহেল হোসেন প্রমুখ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *