চুয়াডাঙ্গা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী সফল অভিযান

জনযুদ্ধের শাহীন আটক : আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার

 

স্টাফ রিপোর্টার: আলমডাঙ্গা বাচামারির শাহীন ওরফে খোড়া শাহীনকে চুয়াডাঙ্গা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ আটক করেছে। উদ্ধার করা হয়েছে একটি শটারগান ও দু রাউন্ড কার্তুজ।

সূত্র বলেছে, আটকের পর তাকে গোয়েন্দা পুলিশ দফতরে নিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর গতকাল আলমডাঙ্গা থানায় মামলাসহ হস্তান্তর করা হয়েছে। শাহিন জনযুদ্ধের আঞ্চলিক নেতা হিসেবে পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিলো। গোয়েন্দা পুলিশ এ তথ্য জানিয়ে বলেছে, পূর্বেও তাকে গ্রেফতার করা হয়। জেলহাজতে ছিলো। জামিনে মুক্ত হয়ে এলাকায় ফিরে সে আবারও গণহারে চাঁদাবাজি শুরু করলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আটক করা হয়। সে আলমডাঙ্গা বাচামারি গ্রামের মৃত ওয়াদ আলীর ছেলে। শাহিনের অপর এক ভাই শাওনও এক সময় জনযুদ্ধের আঞ্চলিক নেতা ছিলো। কয়েক বছর আগে তার লাশ রেললাইনের নিকট থেকে উদ্ধার করা হয়। শাওনের মৃত্যুর পর শাহিন এলাকায় অস্ত্রধারী চরমপন্থি দলের নেতৃত্ব দিতে শুরু করে।

পুলিশসূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার বাছামারি গ্রামের শাহীন ওরফে শাহীন খোড়া (২৮) হাটবোয়ারিয়া-গাংনী সড়কের ধারের একটি চাতালে অবস্থান করছিলো। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাকে আটক করে। আটকের পর তাকে গোয়েন্দা পুলিশ দফতরে নিয়ে শুরু হয় প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ। গতকাল শুক্রবার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই আশরাফ বাদী হয়ে আলমডাঙ্গা থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় আলমডাঙ্গা থানায় তাকে হস্তান্তর করা হয়। পুলিশ বলেছে, শাহীনের বিরুদ্ধে আলমডাঙ্গা, মেহেরপুরের গাংনী ও ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু থানায় কমপক্ষে ৬টি মামলা রয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *