চুয়াডাঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদসভা

 

চুয়াডাঙ্গা কলেজ ছাত্রলীগ বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদসভা করেছে। গতকাল বুধবার দুপুরে কলেজ ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ নেতা খালিদের বাড়ি ভাঙচুর করে বোমাবাজির প্রতিবাদ ও ছাত্রলীগ নেতাদের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদসভার আয়োজন করে। চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশিক ইকবাল স্বপনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠ্যচক্র বিষয়ক সম্পাদক শাহাবুল হোসেন, ক্রীড়া সম্পাদক ফিরোজ জোয়ার্দ্দার, সহসম্পাদক ইমরান হোসেন, পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি জাবিদুল ইসলাম জাবিদ, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানিম হাসান তারেক, জেলা ছাত্রলীগের স্কুল ও ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক রাজু আহম্মেদ, সদস্য খালিদ মাহমুদ, জেলা ছাত্রলীগ নেতা অয়ন হাসান জোয়ার্দ্দার, উপপ্রকাশনা সম্পাদক আনোয়ার, কলেজ ছাত্রলীগ নেতা শাকিল আহম্মেদ জীম প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক মেহেদী হাসান হিমেল।

বক্তারা জেলার জনসেচতন মহলের কাছে মানবিক প্রশ্ন রেখে বলেন, যে মহান ব্যক্তির জন্য লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি সেই মহান ব্যক্তি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিতে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করেছে। তারা কারা? তারা আদৌ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের সাথে কি সম্পৃক্ত? আমরা তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

ছাত্রলীগ নেতা খালিদ মাহমুদকে হত্যার উদ্দেশে গত মঙ্গলবার রাতে আওয়ামী রাজনীতিকে ধ্বংস করার জন্য বিদ্রোহীদের সাথে সম্পৃক্ত এমন কিছু নেতাকর্মী প্রকাশ্যে সাতগাড়ি মোড়ে সন্ত্রাসী হামলা ও বোমাবাজি করে গোটা এলাকা তটস্ত করে রাখে। এ সময় চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিকের নির্দেশে জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক আব্দুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা বরকত ও আতিককে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর করতে সরঞ্জমাদি দেখার জন্য উপস্থিত হওয়ার আগেই সাতগাড়ি মোড়ে তটস্ত বোমাবাজির ঘটনাকে ধামাচাপা দেয়ার জন্য পুলিশ প্রশাসন নিবিচারে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে। পুলিশ তাদেরকে কেন গ্রেফতার করেছে জানতে চাইলে পুলিশ প্রশাসন বলে সন্দেহমূলকভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। উপরের নির্দেশ পেলে আমরা ছেড়ে দেবো, কিন্তু পুলিশ প্রশাসন অন্যায়, মিথ্যাচার ও ভিত্তিহীন বিদ্রোহীদের সন্তষ্টি করবার জন্য তাদেরকে এই মামলায় গ্রেফতার করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং আসামিদের অবিলম্বে মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *