চুয়াডাঙ্গায় একটি বিদ্যালয়ের ৩০ ছাত্রী হঠাৎ অসুস্থ

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় এক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৩০ ছাত্রী আকস্মিক অসুস্থ হয়ে পড়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। উদ্ভূত পরিস্থিতি সামাল দিতে স্কুল ছুটি ঘোষণা করে কৃর্তপক্ষ। কী কারণে এমনটি হয়েছে তা কেউ বলতে পারছে না। তবে ডাক্তার বলেছেন এটা গণহিস্টেরিয়া।

এলাকাসূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সরোজগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় চলাকালীন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বিদ্যালয়ে আকস্মিক কান্নাকাটি ও ছোটাছুটি শুরু হয়। এ সময় একের পর বিদ্যালয়ের প্রায় ৩০ ছাত্রী বেহুঁশ হয়ে পড়ে যায়। এ দৃশ্য দেখে বিদ্যালয়জুড়ে কান্নাকাটি ও হইচই শুরু হয়। স্থানীয়ভাবে ডাক্তার ডাকা হয়। কিন্তু তাতেও কোনো কাজ হয় না। শেষমেশ বিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আকবার আলী জানান, ক’দিন আগে এক ছাত্রীর পিতা মারা যান। সুরজিনা নামের ওই ছাত্রী কান্নাকাটি করছিলো। এসময় এক ছাত্রী মূর্ছা গিয়ে পড়ে যায়। পরে ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রী আমার সামনে হঠাৎ ধপাস করে পড়ে যায়। এতে ইটে লেগে তার মাথা কেটে যায়। পরে অষ্টম শ্রেণির হালিমা, বিলকিস, সোনালীসহ একের পর এক বিভিন্ন শ্রেণির ২০-২৫ জন ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরিস্থিতি বেগতিক হয়ে পড়লে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাথে আলোচনা করে সাথে সাথে বিদ্যালয়ের সকল ছাত্রীকে ছুটি দিয়ে দেয়া হয়। এ সময় পুরো বিদ্যালয়ে আতঙ্ক নেমে আসে। তবে ছাত্রীদের ছুটি দেয়া হলেও ছাত্রদের নিয়ে স্কুল চলে বলে জানান প্রধান শিক্ষক আকবর আলী। কী কারণে এমনটি হয়ে থাকতে পারে? এমন প্রশ্নের জবাবে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার আউলিয়ার রহমান জানান, এটা গণহিস্টেরিয়া। একজনকে দেখে দুর্বল চিত্তের অন্যজন অসুস্থ হয়ে পড়ে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *