চুয়াডাঙ্গার মাছেরদাড়ি গ্রামে সরকারি খাস জমিতে নতুন ঈদগাহ নির্মাণ করা জমি মালিকানা দাবি করায় উত্তেজনা

স্টাফ রির্পোটার: চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের মোমিনপুর ইউনিয়নের মাছেরদাড়ি গ্রামে সরকারি খাস ১৬ শতক জমির গর্ত ভরাট করে ঈদগাহ নির্মাণ করা নিয়ে গ্রামে উত্তেজনা চলছে। যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে গ্রামবাসী। সরকারি টাকায় গর্ত ভরাট করা জমিটির মালিকানা দাবি করায় এই উত্তেজনা বলে গ্রামসূত্র জানায়।

গ্রাম সূত্রে জানা গেছে, গত ৪ বছর আগে চুয়াডাঙ্গার মাছেরদাড়ি গ্রামের গোরস্তান পাড়ার সরকারি খাস ১৬ শতক ও গ্রামের হোসেন আলীর দান কৃত ৪শতক জমির ওপর গ্রামবাসীর সালিসের মাধ্যমে ঈদগাহ নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয়। ইউনিয়ন পরিষদ ও গ্রামবাসীর অর্থায়নে ওই জমির গর্ত ভরাট করে সমতল ভূমি করা হয়। কিছুদিন আগে গ্রামের আত্তাপ সিকাদের ছেলে রহিম বক্স ও লাল মিয়া জমিটি নিজেদের দাবি করে ঈদগাহ নির্মাণে বাধা দিয়ে জমির ওপর গাছ লাগিয়ে জমি দখল করে। গ্রামবাসী উত্তেজিত হয়ে পড়ে। মোমিনপুর ইউনিয়ন পরিষদে মামলা দিলে সেখানে জমিটি খাস উল্লেখ করে। রহিম বক্স ও তার ভাই লাল মিয়া জমিটির মালিকানা কাগজ পত্র দিতে ব্যর্থ হয়।

গ্রামবাসী আরও জানায়, জমিটির প্রকৃত মালিক গ্রামের আদম আলীর ছেলে মেহের আলী। তাদের অবর্তমানে জমিটি সরকারি খাস হয়ে গেছে। বর্তমানে জমিটির মালিকানা দাবি করা ব্যক্তিদের সাথে জমির পূর্ব মালিকদের কোনো রক্তের সম্পর্ক নেই। জামির ক্রেতাও তারা না। জমির গর্ত ভরাট সময় কেউ বাধা দেয়নি। এখন গর্ত ভরাট করা সমতল জমির মালিক দাবি করায় নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। জমিটি নিয়ে গ্রামে পক্ষে বিপক্ষে উত্তেজনার সৃষ্টি হচ্ছে প্রায়। যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা রয়েছে। প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *