চুয়াডাঙ্গার বেগমপুরের পূর্বশত্র“তার জের ধরে দু পক্ষের দ্বন্দ্বের বহির্প্রকাশ

দর্শনা অফিস: চুয়াডাঙ্গার বেগমপুর চিলমারিপাড়া ও হরিশপুর গ্রামের পূর্ব শত্র“তার জের ধরে দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্বের বহির্প্রকাশ ঘটেছে। একপক্ষের হামলায় অপর পক্ষের একজন আহত হয়েছে। এ হামলাকেই পুঁজি করে অপর পক্ষকে ফাঁসাতে ছিনতাইয়ের অভিযোগ তুলে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের নদাগা হরিশপুর গ্রামের গরুব্যবসায়ী আইয়ুব আলী বেপারির ছেলে সানারুলের সাথে বেশ কিছুদিন আগে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয় একই ইউনিয়নের বেগমপুর চিলমারিপাড়ার মোহাম্মদ আলীর ছেলে লালনসহ বেশ কয়েকজনের সাথে। এ দ্বন্দ্বের জের ধরেই গত পরশু শনিবার সন্ধ্যায় বেগমপুর চিলমারিপাড়া-হরিশপুর সড়কের চিলমারি মাদরাসার সামনে সানারুল ও জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়ার রেজাউলের ছেলে শিমুককে মারধর করেছে অপর পক্ষ। এতে সানারুল আহত হয়েছে। এ ঘটনায়কে পূঁজি করে অপর পক্ষকে ফাঁসাতে সানারুল ও তার পক্ষের লোকজন তুলেছে ছিনতাইয়ের অভিযোগ। সানারুলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গত পরশু শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বাড়িতে ফেরার পথে চিলমারি মাদরাসার সামনে চিলমারিপাড়ার মোহাম্মদ আলীর ছেলে লালন, ইসমাইল হোসেনের ছেলে মুক্তার, ইউনুসের ছেলে ফয়সাল, আব্দুলের ছেলে আজিজুল, মিছির আলীর ছেলে রুবেল ও মনার ছেলে রাসেল গতিরোধ করে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে হাত-পা বেঁধে, মুখে কাপড় গুজে দিয়ে, বেধরকভাবে পিটিয়ে কাছে থাকা নগদ ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ও একটি মোবাইলফোন ছিনিয়ে নেয়। সানারুলকে ঘটনার দেড় ঘণ্টার মাথায় গ্রামবাসী উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে। ৬ জনের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগ তুলে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে সানারুলের পক্ষ থেকে। তবে এলাকাবাসী ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ সুপারের সুদৃষ্টি কামনা করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *