চুয়াডাঙ্গার পীরপুর গ্রামে গৃহবধূ সর্প দংশনের শিকার

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার পীরপুর গ্রামের মোমেনা বেগম নামে এক গৃহবধূ সর্প দংশনে শিকার হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে নিজ ঘরে শুয়ে থাকা অবস্থায় তিনি সর্প দংশনের শিকার হন।

মোমেনা বেগম (৫৫) জানান, তিনি নিজ ঘরের মেঝেতে শুয়ে ছিলেন। মঙ্গলবার রাতে ১১টার দিকে হঠাত শরীরে ঠাণ্ডা অনুভূত হয়। তিনি ঝাড়া মেরে ফেলে দিলে দেখতে পান ঠাণ্ডা ওইটা সাপ। এ সময় তার বাম পায়ের আঙ্গুলে সর্প দংশন করে। তিনি চিৎকার দিলে স্বজনরা ছুটে এসে সাপটি মারেন। পরে সাপসহ তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। হাসপাতালে সাপসহ নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসকসহ অন্যদের চোখ চড়কগাছে। সাপ কেন সাথে এনেছেন এমন প্রশ্নে তার সাথে থাকা স্বজনদের স্পষ্ট উত্তর সাপটা বিষধর কি-না এটা ডাক্তার সাহেবকে দেখানোর জন্য নিয়ে আসা। মোমেনা বেগমকে হাসপাতালে ভার্তির পরে অবশ্য সাপটা ফেলে দেয়া হয়। তিনি হামিদুল ইসলামের স্ত্রী।

কর্তব্যরত চিকিৎস হাসনাত পারভেজ শুভ’র জানান, তার শারীরিক অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে না যে তাকে কোনো বিষধর সর্প দংশন করেছে এবং বিষ প্রয়োগ করেছে। তারপরও আমি রোগীর সাথে থাকা স্বজনদের বলেছি শরীরিক অবস্থা অন্য রকম হলে আমাকে ও কর্তব্যরত সেবিকাকে জানানোর জন্য।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *