চুয়াডাঙ্গার পীরপুর ও আলমডাঙ্গার ঘোলদাড়িতে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ ॥ আইনি সহায়তায় পরিদর্শনে মানবতা ফাউন্ডেশন

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদরে পীরপুরে প্রাইভেট শিক্ষকের ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৫ম শ্রেণির ছাত্রী। ওই ছাত্রী ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। এদিকে আলমডাঙ্গার ঘোলদাড়ি মাঠপাড়ায় এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে লালু শাহ।
মানবতা এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার আলুকদিয়া ইউনিয়নের পীরপুরের ৫ম শ্রেণির ছাত্রী গ্রামেই বদির উদ্দীনের ছেলে চাঁদ আলীর কাছে প্রাইভেট পড়ে আসছে। চাঁদ আলী নিজ বাড়িতেই প্রাইভেট পড়িয়ে আসছিলো গ্রামের কয়েকজনকে। ৪ মাসে আগে গ্রামের ৫ শ্রেণির এক ছাত্রীকে প্রাণের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে চাঁদ আলী। ভয়ে ওই ছাত্রী আত্মগোপন করলেও অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। আইনি সহায়তা চেয়ে চুয়াডাঙ্গা মানবতা ফাউন্ডেশনে আবেদন করে। আবেদন পেয়ে মানবতা সংস্থা প্রয়োজনীয় আইনি সহায়তার দেয়ার জন্য পাশে দাঁড়িয়েছে। অপরদিকে চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার ঘোলদাড়ি মাঠপাড়ার এক স্কুলছাত্রীকে একই গ্রামের লালু শাহ ধর্ষণ করেছে। এ মর্মে অভিযোগ উঠেছে। গত ২৪ মে দরিদ্র দিনমজুরের মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়। এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে গ্রামে সালিসের নামে টাকা আদায় করে বলেও অভিযোগ ওঠে। গ্রামের সুলতানের ছেলে নজরুল, হানেফ মেম্বার টাকা আদায় করে বলে অভিযোগ পেয়ে সরেজমিন পরিদর্শন করে মানবতা ফাউন্ডেশনের একটি দল। এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়ে বলা হয়েছে, ধর্ষণের শিকার ৭ম শ্রেণির ছাত্রীর পরিবার বিচার না পেয়ে আইনগত সহায়তা চেয়েছে। গতকাল সরেজমিন পরিদর্শনকালে মানবতা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অ্যাড. মানি খন্দকার, অ্যাড. কাইজার হোসেন জোয়ার্দ্দার, হাফিজ উদ্দীন হাবলু ও অ্যাড. জীল্লুর রহমান জালাল ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীসহ স্থানীয়দের সাথে কথা বলেন। ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *