চুয়াডাঙ্গার দুটি নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগ মনোনীতদের স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল

উৎসব : মেহেরপুর গাংনীতে মনোনীতকে স্বাগত জানিয়ে মিষ্টি মুখ : বঞ্চিতর সমর্থকদের বিক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার দুটি নির্বাচনী এলাকায় আওয়ামী লীগ মনোনীতদের স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল করা হয়েছে। মেহেরপুরের গাংনী আসনে মনোনয়ন বঞ্চিতের সমর্থকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে, অপরদিকে মনোনীত নেতার সমর্থকেরা আনন্দ মিছিল করার পাশাপাশি মিষ্টি মুখও করেছে। ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা গাংনীতে বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। পরে অবশ্য মনোনয়ন বঞ্চিত মকবুল হোসনে তার সমর্থকদের শান্ত করেন।

নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচনে যাবে না বিএনপি। এ ঘোষণা দিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি পুনঃস্থাপনের দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে। অপরদিকে আওয়ামী লীগ গতকাল সারাদেশে ৩শ আসনেই চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে। জাতীয়পার্টি, জাসদ, ওয়ার্কার্সপার্টিসহ ১৪ দলীয় জোটের অংশীদাররাও পৃথকভাবে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে নির্বাচনের জোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। গতকাল আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ মিছিল বের করে। মিছিলে যুবলীগ আহ্বায়ক আরেফিন আলম রঞ্জুসহ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও অংশ নেয়। কবরী রোডস্থ কার্যালয়ে উৎসবের আমেজ ফুটে ওঠে। চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে হাজি আলী আজগার টগরকেও স্বাগত জানিয়ে দামুড়হুদা ও দর্শনাসহ বিভিন্ন স্থানে আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন লাভ করায় দলীয় নেতা-কর্মীরা আনন্দ মিছিল বের করে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হয়ে বাদ্যযন্ত্র ও আতশবাজি ফোঁটাতে ফোঁটাতে আনন্দ মিছিলটি শহর প্রদক্ষিণ করে। আনন্দ মিছিলের নেতৃত্ব দেন জেলা যুবলীগ নেতা নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার ও সাবেক জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল করিম।

দর্শনা অফিস জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগরকে মনোনয়ন দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে মিছিল করেছে দর্শনা পৌর আ.লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় দর্শনা পৌর আ.লীগের কার্যালয় থেকে অভিনন্দন মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। উপস্থিত ছিলেন আ.লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তম আলী, জাহিদুল ইসলাম, গোলাম ফারুক আরিফ, আলী মুনসুর বাবু, ফজলুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর আলম, বিল্লাল হোসেন, আবুল কালাম আজাদ, যুবলীগ নেতা আব্দুল হান্নান ছোট, আজিজুর রহমান বাবু, শেখ আসলাম আলী তোতা, সাবির হোসেন মিকা, মজনুর মোর্শেদ, হাবিবুর রহমান মিলন প্রমুখ।

দামুড়হুদা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগেও আনন্দ মিছিল করা হয়। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে আনন্দ মিছিলটি দামুড়হুদা বাসস্ট্যান্ড থেকে শুরু হয় এবং উপজেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। উপজেলা যুবলীগ নেতা শফিউল কবির ইউসুফ, অ্যাড. আবু তালেব, সেলিম উদ্দিন বগা, আ.লীগ নেতা ইমতিয়াজ হোসেন, আব্দুল মালেক, হাশেম মেম্বার, জনাব আলী, মতি যুবলীগ নেতা ছোট হযরত, শরিফুল, আজিবার, জাহিদুল মেম্বার, জমাত আলী, রকিবুল, বড় শাহিন, পিন্টু, মালেক, ওসমান, খালেক, মিনারুল, মিলন, রফিকুল, আরিফুল, ইজা, দামুড়হুদা কলেজ ছাত্রলীগের আহ্বায়ক শাহিন মোল্লা, সজিব, রায়হান, বাবু প্রমুখ আনন্দ মিছিলে অংশ নেন। মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তরা হাজি আলী আজগার টগর দলীয় প্রতীক নৌকা লাভ করায় শুকরিয়া আদায় করেন এবং উপস্থিত নেতাকর্মীদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করেন।

ভালাইপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, গতকাল শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে আলমডাঙ্গার গাংনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আসমানখালী বাজারে আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ ও মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা যুবলীগ নেতা গাংনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্মআহ্বায়ক আবু তাহের আবুর নেতৃত্বে আসমানখালী বাজারে সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন মনোনয়ন পাওয়ায় আনন্দ মিছিল বের হয়। শেষে মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় গাংনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্মআহ্বায়ক আবু তাহের আবুর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন গাংনী ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক রোকনুজ্জামান টোকন, যুবলীগ নেতা হৃদয় হোসেন ফারুক, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান অদুত, লাভলু, খেদের আলী, ভদু, জাহাঙ্গীর, নাসির, ডালিম, জিনারুল, মজনু, জাহিদুল, মজিবার, রকিবুল হাসান প্রমুখ।

অপরদিকে গতকাল সন্ধ্যায় আলমডাঙ্গার চিৎলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ভালাইপুর মোড়ে আনন্দ মিছিল, মিষ্টি বিতরণ ও মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা যুবলীগ নেতা ও  চিৎলা ইউপি চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমানের নেতৃত্বে ভালাইপুর মোড়ে আনন্দ মিছিল বের হয়। শেষে মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলমডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমবায় সম্পাদক আমির হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন চিৎলা ইউপি চেয়াম্যান জিল্লুর রহমান। অতিথি ছিলেন চিৎলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক টুকু, জেলা যুবলীগ নেতা তহিদুল ইসলাম ফকা, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন দিপু, আওয়ামী লীগ নেতা শুকুর আলী, ইন্তাদুল মেম্বার প্রমুখ।

গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় মনোনয়ন ঘোষণা হলে এমএ খালেক সমর্থকরা উল্লাস প্রকাশ করেন। আর বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন সাবেক এমপি মকবুল হোসেন সমর্থকরা।

সন্ধ্যায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে মনোনয়নের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর পরই এমএ খালেকের বাসভবনসহ বিভিন্ন স্থানে তার সমর্থকরা উল্লাস প্রকাশ করেন। তার বাসভবনের সামনে জড়ো হন নেতাকর্মীরা। তবে এমএ খালেক ঢাকায় অবস্থান করায় তারা আনন্দ মিছিল করেননি। ঢাকা থেকে ফিরলে তাকে অভ্যর্থনা জানাতে প্রস্তুত হচ্ছেন নেতাকর্মীরা। আজ দিনের যেকোনো সময় খলিশাকুণ্ডি ঘাট এলাকা থেকে তাকে গ্রহণ করে মোটরসাইকেল শো-ডাউন করে গাংনী শহরে আনা হবে। দ্বিধাদ্বন্দ ভুলে গিয়ে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নৌকা মার্কার বিজয়ের জন্য কাজ করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন এমএ খালেক।

এদিকে সাবেক এমপি মকবুল হোসেনের সমর্থকরা তাৎক্ষণিক তার বাসভবনের সামনের সড়ক অবরোধ করে। এ সময় একটি মাইক্রোবাস ও একটি বাসে ভাঙচুর চালানো হয়। ভাঙা গ্লাস নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে ক্ষতিগ্রস্ত যান দুটি। এ সময় চারদিকে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। কয়েক মিনিটের অবরোধের পর মকবুল হোসেনসহ নেতৃবৃন্দ বিক্ষুব্ধদের নিবৃত্ত করেন। গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাছুদুল আলমসহ সঙ্গীয় পুলিশ সদস্যরা বিশৃঙ্খলা না করার আহ্বান জানান। মকবুল হোসেনের বাসভবনের সামনে জড়ো হওয়া নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখেন মকবুল হোসেন, পৌরমেয়র আহম্মেদ আলীসহ নেতৃবৃন্দ। প্রতিবাদ ও প্রতিরোধের বিষয়ে মতামত প্রকাশ করেন উপস্থিত অনেকেই। তবে আজ দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীদের সাথে বৈঠকের পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে জানান মকবুল হোসেন। তিনি সকলকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, জনগণ যে সিদ্ধান্ত দেবে তিনি তাই-ই মেনে নেবেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শফি কামাল পলাশ, জেলা যুবলীগের যুগ্মসম্পাদক সোহেল আহম্মেদ, উপজেলা যুবলীগের যুগ্মসম্পাদক মজিরুল ইসলাম, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মানিক সাধু, সাধারণ সম্পাদক ইমরান হাবীব, কলেজ ছাত্রলীগের সম্পাদক উজ্জ্বল, সিপু প্রমুখ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *