চুয়াডাঙ্গার ঝাঁজরি গ্রামে স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা : অভিযুক্ত প্রভাবশালীর ছেলে জাহিরুল

 

বেগমপুর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার ঝাঁজরি গ্রামের প্রভাবশালী পরিবারের লম্পট ছেলে জাহিরুল ইসলাম ফুঁসলিয়ে দেহভোগ করেছে গ্রামের দরিদ্র পরিবারের ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে। ফলে ওই স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। তবে অভিযুক্ত জাহিরুল এ অপকর্মের কথা অস্বীকার করছে। এ নিয়ে দফায় দফায়  বসছে সালিস বৈঠক। তাতেও কোনো সুরাহা না হওয়ায় নেয়া হচ্ছে মামলার প্রস্তুতি।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের ঝাঁজরি বসতিপাড়ার হতদরিদ্র দিনমজুরের মেয়ে ৮ম শ্রেণির ছাত্রী অভিযোগ করে বলেছে, একই গ্রামের প্রভাবশালী ফজলুল হক ওরফে ফজুর ছেলে জাহিরুল ইসলাম বছর দেড়েক ধরে তার পিছু নেয়। বিভিন্নভাবে তাকে ফুঁসলিয়ে  বিয়ের প্রস্তাব দেয় এবং দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরই মধ্যে আড়াই মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে স্কুলছাত্রী। এ অভিযোগ শুনে বেঁকে বসে জাহিরুল। স্কুলছাত্রীর অনাগত সন্তান নষ্ট করার জন্যে হুমকি-ধামকি দিতে থাকে জাহিরুল ও তার লোকজন। বিষয়টি গ্রামে জানাজানি হয়ে গেলে অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রীর পক্ষ থেকে বিয়ের দাবি তোলা হয়। কিন্তু অভিযুক্ত জাহিরুল ও তার পরিবারের লোকজন টাকার বিনিময়ে অপকর্মটি ধামাচাপা দিতে চাইলেও বিয়েতে অস্বীকৃতি জানায়। সর্বশেষ সালিস বৈঠকে জাহিরুলের পিতা ফজু চ্যালেঞ্জ করে বলেছেন, অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনা মিথ্যা। তার ছেলেকে ফাঁসানোর জন্যই মিথ্যা নাটক সাজানো হয়েছে। গত রোববার চুয়াডাঙ্গার স্মৃতি প্যাথলজি ও ফেয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে স্কুলছাত্রীর প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে গ্রামবাসীর নিশ্চিত হয় স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনায় জাহিরুলের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে গ্রামসূত্রে জানগেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *