চিকিৎসার খরচ জোগাতে শরীর প্রদর্শন

 

গাংনী প্রতিনিধি: শরীরের অস্বাভাবিক বৃদ্ধিতে মহা বিপাকে পড়ে সেই শরীর প্রদর্শন করেই চিকিৎসার খরচ জোগাড়ের প্রাণান্ত চেষ্টা করছেন আসাদুল হক নামের ২৬ বছর বয়সী এক যুবক। মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার চিৎলা গ্রামে ঈদ মেলায় এসেছেন আসাদুল হক। ১২ বছর বয়স থেকে ফাইলেরিয়া (গোদ রোগ) আক্রান্ত হয়ে শরীরের নিচের অংশের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি ঘটে। এখন তিনি চলতে পারেন না। শুয়ে বসে অন্যের সহযোগিতায় ব্যক্তিগত কাজকর্ম সম্পন্ন করতে হয়। দরিদ্র পরিবারের পক্ষে তার উন্নত চিকিৎসাও সম্ভব নয়।

আসাদুলের বাড়ি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামে। নিজ এলাকা ছাড়াও আশেপাশের বিভিন্ন স্থানে শরীর প্রদর্শন করে যা আয় হয় তা দিয়েই চলে তার প্রাত্যহিক ওষুধ খরচ। চিৎলা মেলায় তাকে দেখতে ভিড় করছেন শ শ উৎসুক মানুষ।

আসাদুলের পিতা মোজাম্মেল হক জানান, ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে লেখাপড়াকালীন সময়ে তার শরীরে জ্বর আসে। প্রচণ্ড জ্বর কয়েকদিন পরে সেরে গেলেও তার ডান পা ফুলে যায়। এক পর্যায়ে চিকিৎসকরা আসাদুলের শরীরে ফাইলেরিয়ার অস্তিত্ব শনাক্ত করেন। বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ সব হাসপাতাল ঘুরে তার চিকিৎসা হয়নি। নিরুপায় হয়েই ঘুরছেন বিভিন্ন স্থানে। বিদেশে চিকিৎসার জন্য প্রচুর অর্থের প্রয়োজন। তাই সমাজের বিত্তবান সহৃদয়বান ব্যক্তিদের সহযোগিতার হাত বাড়ানোর আকুতি জানান তিনি। মেলার আয়োজক চিৎলা গ্রামের ওয়াসিম সাজ্জাদ লিখন জানান, দর্শনার্থীরা যে টাকা দিবেন তা আসাদুলের চিকিৎসর জন্য ব্যয় করা হবে। এজন্য তাকে এখানে আনা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.