গ্রামবাসীর প্রতিরোধ : ডাকাত সর্দার লক্ষ্মীপুরের কুদ্দুস পাকড়াও : বোমা উদ্ধার

দামুড়হুদার বিষ্ণুপুরে সশস্ত্র ডাকাতদলের হানা : ডাকাতি শেষে পালানোর সময় বাড়ির মালিকের হৈ-জাকার

দামুড়হুদা প্রতিনিধি: দামুড়হুদার বিষ্ণুপুরে গভীররাতে ১০/১২ জনের সশস্ত্র ডাকাতদল প্রবাসীর বাড়িতে হানা দিয়ে দেড় লাখ টাকা লুট করে নিয়ে গেছে। ডাকাতদল পালিয়ে যাওয়ার সময় বাড়ির মালিকের হৈজাকারে গ্রামবাসী প্রতিরোধ গড়ে তুললে ডাকাতদল প্রতিরোধমুখি গ্রামবাসীদের লক্ষ্য করে একটি বোমা নিক্ষেপ করলেও তা বিস্ফোরিত না হওয়ায় তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে। অবশেষে বাড়ির অদুরবর্তী পানবরজের মধ্যথেকে ডাকাত সর্দার উপজেলার দলকা লক্ষ্মীপুরের কুদ্দুসকে পাকড়াও করে উত্তেজিত গ্রামবাসী গণধোলায় দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। বুধবার রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রামবাসীসূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামের লিয়াকত আলীর মালয়েশিয়া প্রবাসী জামাই জসিম বাড়ির ছাদ ঢালায়ের জন্য সম্প্রতি দেড় লাখ টাকা পাঠায়। জসিমের স্ত্রী আলেমন বেগম বুধবার ওই টাকা ব্যাংক থেকে তুলে বাড়ি নিয়ে যায়। রাত আনুমানিক ২টার দিকে ১০/১২ জনের সমস্ত্র ডাকাতদল বাড়িতে হানা দেয় এবং তার ৭ বছর বয়সী শিশু ছেলে ইসমাইলের গলায় ধারালো হেঁসো ধরে বাড়ির সকলকে জিম্মি করে ফেলে। ডাকাতরা বলে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে নিয়ে এসেছিস তাড়াতাড়ি বের করে দে নইলে তোর ছেলেকে জবাই করে দেব। এ কথার পরপরই আলেমান ছেরের জীবন বাঁচাতে দেড় লাখ টাকা তুলে দেয় ডাকাতদলের হাতে। টাকা পেয়ে ডাকাতদল বাড়ি থেকে বের হওয়ার সাথে সাথে লিয়াকত ও তার পরিবারের লোকজন ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করলে মহল্লাবাসী বেরিয়ে আসে এবং ডাকাদের পিছু ধাওয়া করে। ডাকাতদল এ সময় প্রতিরোধমুখি গ্রামবাসীকে উদ্দেশ্য করে একটি বোমা নিক্ষেপ করলেও তা বিস্ফোরিত না হলে ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে সংঘবদ্ধ ডাকাতদল। অন্যান্য ডাকাতরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও বাড়ির অদুরে একটি পানবরজ থেকে ডাকাতসর্দার দলকা লক্ষ্মীপুরের মৃত খোকাই মণ্ডলের ছেলে কুদ্দুসকে (৩০) পাকড়াও করে উত্তেজিত গ্রামবাসী গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। এ বিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আহসান হাবীব (পিপিএম) জানান, গ্রামবাসীর হাতে আটক কুদ্দুস একজন খুন মামলার আসামি। তাকে থানা হাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবদে বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্যও দিয়েছে এবং সে ঘটনার সাথে জড়িতদের নামও বলেছে। বাকিদের ধরতে অভিযান অব্যহত রাখা হয়েছে। আশা করছি ঘটনার সাথে জড়িত অন্যরাও অচিরেই ধরা পড়বে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *