গাংনী বিএম কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ

 

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনী বিএম কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ স্বপনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ উত্থাপন করেছেন পরিচালনা পর্যদের কয়েক সদস্য ও বাঁশবাড়িয়া গ্রামের মানুষ। দুর্নীতি ও স্বজনপ্রীতিসহ কয়েকটি অভিযোগের তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তারা। তবে বিষয়টি রাজনৈতিক বিরোধের কারণে হচ্ছে বলে দাবি করেছেন অধ্যক্ষ।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বাঁশবাড়িয়া গ্রামে অবস্থিত গাংনী টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজের অধ্যক্ষ আয়-ব্যয়ের হিসাব না দিয়ে স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে খরচ করেন। কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই কলেজের ১৫টি গাছ কর্তন করেছেন। টিআর বরাদ্দ, ভর্তি, ও ফর্ম পূরণ বাবদ ৫০ লক্ষাধিক টাকার হিসাব দাখিল করেননি। নিয়োগ বাণিজ্য করে মেধাহীন শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছেন। জামায়াত-শিবিরকে আশ্রয় দিয়ে বিভিন্ন কর্মকাণ্ড করছেন। তিনি বিভিন্ন মামলার আসামি। কলেজ পরিচালনা পর্যদের সদস্য কুতুব উদ্দীন, আমিরুল ইসলাম, ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সামসুদ্দীন ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হামিদসহ গ্রামের অনেকেই অভিযোগপত্রে গণস্বাক্ষর করে অধ্যক্ষের অপসারণ দাবি করেছেন। শিক্ষামন্ত্রী, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ প্রেরণ করে জরুরি ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি করেছেন তারা।

তবে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ স্বজন। অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেছেন, মন্ত্রণালয়ের অডিট হয়েছে। তাই হিসাব নিয়ে কোনো প্রশ্ন থাকার সুযোগ নেই। একসময় কলেজ প্রাঙ্গণে যে নার্সারি ছিলো সেখানের ছোট গাছ অপসারণ করা হয়েছে। অন্য কোনো গাছ কর্তন করা হয়নি। টিআর বরাদ্দসহ কলেজের অন্যান্য অর্থ থেকে ভবন সম্প্রসারণ, টয়লেট, গ্রিলসহ উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। কোনো প্রকার অর্থ আত্মসাৎ করা হয়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published.