গাংনীতে প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে ঢুকে মোবাইল ব্যবসায়ীফোন শিলু গ্যাড়াকলে

গাংনী প্রতিনিধি: গাংনী মাঠ পাড়ায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে রঙ্গলীলা চলাকালীন সময়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে গণপিটুনীর স্বীকার হয়েছেন শামীম রেজা ওরফে শিলু নামের এক মোবাইলফোন ব্যবসায়ী। স্থানীয়রা দুজনকেই পুলিশের হাতে সোপর্দ করেছে। শামীম রেজা ওরফে শিলু গাংনী বাজার পাড়ার আলাল উদ্দীনের ছেলে ও গাংনী বাজারের শ্রাবণ মোবাইল হাউজের স্বত্ত্বাধিকারী। শনিবার দিবাগত মধ্য রাতে গাংনী থানা পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, গাংনী মাঠপাড়ার জনৈক মুদি ব্যবসায়ীর মেয়ে স্বপ্নার (ছদ্ম নাম) মোবাইলফোনে বিয়ে হয় আমতৈল-মানিকদিয়া গ্রামের মালেশিয়া প্রবাসী যুবকের সাথে। মোবাইলফোনে বিয়ের পর স্বামীর সাথে একদিনও সাক্ষাত হয়নি গৃহবধূর। দুয়েকদিন কথা হলেও কাছে পায়নি স্বামিকে। তাই যৌবনের জ্বালা মেটাতে পরোকীয়া প্রেমজ সম্পর্ক গড়ে তোলে গাংনী বাজারের শ্রাবণ মোবাইল হাউজের স্বত্ত্বাধিকারী এক সন্তানের জনক শামীম রেজা ওরফে শিলুর সাথে। প্রায় দুজন মিলিত হতো গোপন অভিসারে। এরই মাঝে ঘটে যায় বিপত্তি। শনিবার গভীর রাতে ওই গৃহবধূর ঘরে রঙ্গলিলায় মত্ত হয় শিলু।

দুজন যখন একে অপরের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় লিপ্ত ঠিক সেসময় ওই গৃহবধূর মামা ও স্থানীয় লোকজন হানা দেয়। এসময় দুজনকে ধরে গণপিটুনী দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে গাংনী ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইদ্রীস আলী জানান, শনিবার রাতে ওই গৃহবধূর মামা হাসানুর ও তোফাজ্জল আম বাগান পাহারা করছিলেন। শিলু ওই গৃহবধূর ঘরে প্রবেশ করলে তারা স্থানীয় লোকজনকে ডাকেন এবং বাড়িটি ঘিরে ফেলেন। পরে স্থানীয়রা ঘর থেকে দুজনকে আপত্তিকর অবস্থায় বের করে এনে গণপিটুনী দেয় এবং পুলিশে খবর দেয়। গাংনী থানার এসআই বখতিয়ার দুজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

গাংনী থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, গাংনী পৌরসভার ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরসহ স্থানীয়রা বিষয়টি মীমাংসা করেছেন। ওই নারীর পরিবার কোনো অভিযোগ করেননি। উভয় পক্ষের মধ্যস্থতায় দুজনকেই মুক্তি দেয়া হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.