গরু চোর চক্র পাকড়াও

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার কুতুবপুর থেকে ৫টি হালের গরু চুরির সাথে জড়িত সন্দেহে কুতুবপুর গ্রামের মৃত মাহতাব ফারাজির ছেলে ওহিদ ফারাজি ও তার ছেলে মানিক ফরাজিকে আটক করেছে পুলিশ। উদ্ধার করা হয়েছে মাগুরা থেকে চুরি করে নিয়ে আসা একটি গাভীসহ বাছুর। পুলিশ ও গ্রাম সূত্রে জানা গেছে, গত ৭ জুলাই শুক্রবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের কুতুবপুর দক্ষিণপাড়ার দুটি বাড়ি থেকে ৫টি হালের গরু চুরির ঘটনা ঘটে। গ্রামবাসী ও পুলিশ চুরি হওয়া ৫টি গরু উদ্ধার করার জন্য এলাকার বিভিন্ন পশুহাটে সন্ধান নেয়। গরু চুরির ১২ দিন অতিবাহিত হওয়ার পর গত ১৭ জুলাই সোমবার রাতে কুতুবপুর গ্রামের মত মাহতাব ফারাজির ছেলে ওহিদ ফারাজি ও তার ছেলে মানিক মাগুরা কালোপাড়া নামকস্থান থেকে একটি গাভীসহ বাছুর চুরি করে মিনিট্রাকযোগে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসে।  গ্রামে তারা জানায় ফরিদপুর এলাকার হাট থেকে গাভীসহ বাছুর কিনে নিয়ে এসেছি। এরই সূত্র ধরে মাগুরা উপজেলার শঙ্কচিলা ইউনিয়নের আকসি কালোপাড়ার মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে সলেমান হক জানতে পান মাগুরা আকসির কসাই কামরুল হক, সিরাজুল ও সুবারেক তার গোয়াল ঘর থেকে গাভীসহ বাছুর চুরি করে নিয়ে গেছে। ওই রাতে সলেমান হক মাগুরা থানা পুলিশের সহযোগিতায় একই গ্রামের কসাই কামরুলকে আটক করে। তার স্বীকারোক্তিতে রাতেই কুতুবপুর গ্রামের ওহিদ ফারাজির বাড়িতে হাজির হয়। পুলিশ ওহিদের বাড়ি থেকে চোরাই গাভীসহ বাছুর উদ্ধার করে। চুরির অভিযোগে পুলিশ গ্রেফতার করে ওহিদ ফারাজি ও তার ছেলে মানিক ফরাজিকে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গ্রামবাসী সামনে বেরিয়ে আসে এলাকার গরু চোরদের গডফাদারদের নাম। গত ৭ জুলাই শুক্রবার রাতে কুতুবপুর ইউনিয়নের কুতুবপুর দক্ষিণপাড়ার লাল্টুর ৪টি হালের গরু ও একই পাড়ার জুমার এক গরুসহ ৫টি গরু চুরির ঘটনা চারিদিক ছড়িয়ে পড়ে। গ্রামবাসী ও পুলিশ বলেছেন, গ্রাম থেকে চোরাই গরু যখন উদ্ধার হয়েছে, সেই চোর কুতুবপুর গ্রামের ওহিদ ফারাজি ও তার ছেলে মানিক ফরাজি। তারাই গ্রাম থেকে চুরি করে মাগুরায় নিয়ে গেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে অভিযুক্ত দুজনকে নিয়ে লাল্টু ও জুমার চুরি হওয়া গরু উদ্ধারের জন্য যায় মাগুরার আকসি কালোপাড়া গ্রামে যায়। সেখানে গরুর কোনো সন্ধান না পাওয়া গেলেও মাগুরা আকসি গ্রামের বিশু শেখের ছেলে বাবু শেখ ও আব্দুল খালেক আলীর ছেলে সলেমানসহ পুলিশ জানায়, আকসির কসাই কামরুলম, সিরাজুল ও সুবারেক এলাকায় চিহ্নিত চোর। তারা এলাকার কৃষকের গোয়াল ঘর থেকে গরু চুরি করে ট্রাকযোগে চুয়াডাঙ্গার কুতুবপুর গ্রামের ওহিদের বাড়িতে রাখে। আর চুয়াডাঙ্গা এলাকার বিভিন্ন কৃষকের গরু রাতের আধারে চুরি করে ঝিনাইদহের এলাকার মিন্টু গরুব্যবসায়ীর সহযোগিতায় কসাই কামরুলের বাড়িতে পাঠানো হয়। ওহিদ ও তার ছেলে মানিকে গরু চুরির অভিযোগে মাগুরা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে কুতুবপুর পুলিশের ইনচার্জ মফিজুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, কুতুবপুর গ্রাম থেকে গরু চুরি ও বহিরাগত এলাকা থেকে চোরাই গরু উদ্ধার করা ঘটনাটি সত্য। ওহিদ তার ছেলে মানিকে আকসির গ্রামের সলেমান হকের গরু চুরির অভিযোগে তাদেরকে গরুমালিক কর্তৃক মাগুরা থানা নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অপরদিকে কুতুবপুর গ্রামের মেম্বার মকলেকসুর রহমান বলেন, গ্রামসহ এলাকার আশেপাশ থেকে গরু চুরির ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *