গত পাঁচ বছরে প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ নেই

 

স্টাফ রিপোর্টার: বিগতপাঁচ বছরে কোনো পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ পাওয়া যায়নি জানিয়েছেনশিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, এ বছর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, ঢাকার অধীনে অনুষ্ঠিত এইচএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রফাঁসের অভিযোগ পাওয়া যাওয়ায় বিষয়টি খতিয়ে দেখা হয়। এরপর প্রাথমিক সত্যতাপাওয়ার পর ইংরেজি দ্বিতীয়পত্রের পরীক্ষা স্থগিত করে নতুন করে প্রশ্নপত্রছাপিয়ে পরবর্তী সময়ে নতুনভাবে পরীক্ষা নেয়া হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সংসদে জাতীয় পার্টির সদস্য এম এ হান্নানের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রীবলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা তদন্তে দুটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এর মধ্যেমাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড একটি কমিটি গঠন করে। একইসাথেশিক্ষা মন্ত্রণালয়ও একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন কমিটি গঠন করেছে। উভয় কমিটিতাদের তদন্ত কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে।তিনি বলেন, তদন্ত রিপোর্ট পাওয়ারপর এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে এ ঘটনায় ফরিদপুরে দায়েরকৃতদুটি মামলায় ৩ জন হাজতে রয়েছে। সে মামলা বিচারাধীন রয়েছে।শিক্ষামন্ত্রীবলেন, পাবলিক পরীক্ষাগুলো (অপরাধ) আইন, ১৯৮০ (সংশোধিত ১৯৯২)-এর আওতায়আলোচ্য অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্টের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হয়। এআইনে এ রূপ অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সর্বোচ্চ ৪ বছরের কারাদণ্ডেঅথবা আর্থিক দন্ডে অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত করার বিধান রয়েছে।নুরুল ইসলামনাহিদ বলেন, তবে আরো কঠোর শাস্তির বিধান করতে প্রয়োজনে আইনটিপরীক্ষা-নিরীক্ষা করা যেতে পারে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *