খনি বিস্ফোরণ: তুরস্ক জুড়ে প্রতিবাদ

মাথাভাঙ্গা মনিটর: তুরস্কে কয়লাখনি দুর্ঘটনায় প্রাণহানির প্রতিবাদেদিনব্যাপি ধর্মঘট করেছে দেশটির শ্রমিক সংগঠনগুলো। সরকারিভাবেও তিনদিনেররাষ্ট্রীয় শোক পালন করা হচ্ছে।বৃহস্পতিবার দুর্ঘটনার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সর্বমোট ২৮২টি মৃতদেহ উদ্ধারকরা গেছে। এখনো ১৫০ শ্রমিক নিখোঁজ রয়েছে বলে জ্বালানিমন্ত্রী তেনার ইলদিজজানিয়েছেন।তুরস্কের সোমা এলাকায় মঙ্গলবার রাতে একটি কয়লা খনিতে ভয়াবহ বিস্ফোরণঘটে। দুর্ঘটনার সময় ৭৮৭ জন শ্রমিক ওই খনির অভ্যন্তরে অবস্থান করছিলেন।শ্রমিকনেতাদের অভিযোগ, সরকারের বেসরকারিকরণ নীতির কারণে খনি শিল্পে কর্মপরিবেশঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। মঙ্গলবারের দুর্ঘটনা দুর্বল নিরাপত্তা ব্যবস্থারই ফল।খনিদুর্ঘটনায় প্রাণহানির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার তুরস্কের প্রধান শ্রমিক সংগঠন ধর্মঘটপালন করছে। এছাড়া দেশের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি শহরে শ্রমিকদেরকে বিক্ষোভ করতে দেখা যায়।বুধবারদুর্ঘটনাস্থল সোমা কয়লাখনি পরিদর্শনে গেলে বিক্ষোভকারীদের রোষানলে পড়েনপ্রধানমন্ত্রী রেসেপ তাইপ এরদোয়ান। তারা এরদোয়ানকে উদ্দেশ করে শিস দেয় এবং তারগাড়িতে লাথি মারে।সরকারিকর্মকর্তারা জানান, দুর্ঘটনার পর ৩৬৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তবে বুধবারবিকেলের পর নতুন করে আর কাউকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *