কেরুজ ডিস্টিলারিতে মদসহ হাতেনাতে চুক্তি ভিত্তিক শ্রমিক ছালেক আটক নিয়ে গুঞ্জন

দর্শনা অফিস: কেরুজ ডিস্টিলারিতে মদসহ হাতেনাতে ছালেক নামের চুক্তি ভিত্তিক এক শ্রমিক আটকর অভিযোগ উঠেছে। চুরি ও চোর আটকের ঘটনায় সৃষ্টি হয়েছে ধু¤্রজালের। গতকাল রোববার দুপুর দেড়টার দিকে কেরুজ ডিস্টিলারি বিভাগের শ্রমিকরা কাজ শেষে বের হচ্ছিলো। এ সময় চিনিকলের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সদস্যরা তল্লাশি অভিযান চালায়। অভিযোগ উঠেছে, তল্লাশিকালে কেরুজ উৎপাদিত ১ বোতল ফরেন লিকারসহ আটক করা হয় ডিস্টিলারি বিভাগের চুক্তি ভিত্তিক শ্রমিক ছালেককে। এ সময় ছালেক মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের এক কর্মকর্তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনা এলাকায় ব্যাপক আলোচনা-সমলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। কেউ কেউ বলেছে, চুরি ও চোর আটক ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার পাঁয়তারায় মেতেছে একটি মহল। এ ব্যাপারে মিলের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের ডিও জাফরুল্লাহ আলম বলেছেন, মাঝেমধ্যেই শ্রমিকদের তল্লাশি চালিয়ে থাকি আমরা। ছালেককে তল্লাশি করার সময় তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি হাত থেকে পড়ে যায়। এ নিয়ে ছালেকের সাথে ঘটে তর্ক-বিতর্কের ঘটনা। এ পর্যন্ত মদসহ আটক করে আমরা কাউকে ছাড়েনি। মহাব্যবস্থাপক (ডিস্টিলারি) ফিদাহ হাসান বাদশা বলেন, ডিস্টিলারি বিভাগে এ ধরনের ঘটনা ঘটলে অবশ্যই গোপন ক্যামারায় ভিডিও ধারণ থাকবে। এ দিকে চুরি ও চোর আটকের অভিযোগ উঠলেও মিলের প্রশাসন বিভাগে কোনো অভিযোগ দাখিল করা হয়নি কারো বিরুদ্ধে। অভিযোগ খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এনায়েত হোসেনের সুদৃষ্টি কামনা করেছে সচেতন মহল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *