কী আছে সেই রহস্যময় গর্তে

মাথাভাঙ্গা মনিটর: রাশিয়ার পেনিনসুলায় ইয়ামাল বা পৃথিবীর শেষ প্রান্ত হিসেবে খ্যাত এলাকায়রহস্যময় একটি গর্ত মানুষের মধ্যে নানা কৌতূহলের জন্ম দিয়েছে। কী আছে সেইগর্তের ভেতর? সম্প্রতি রাশিয়ার গবেষকেরা সেই রহস্যের সমাধান করেছেন।রহস্যময় এই গর্তটির ভেতরে কী আছে তা নিয়ে একটি ভিডিও ফুটেজও প্রকাশিতহয়েছে।অনেকেই ধারণা করছিলেন গ্রহাণু বা মিসাইলের আঘাত কিংবা কোনো বিস্ফোরণেসৃষ্টি হয়েছে এই গর্তের। গবেষকেরা দাবি করেছেন, এই গর্তটি এলিয়েন, গ্রহাণুবা কোনো ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাত বা কোনো গ্যাস বিস্ফোরণে সৃষ্টি হয়নি। বৈশ্বিকউষ্ণতা বৃদ্ধি এই গর্ত সৃষ্টির জন্য দায়ী।এর আগে হেলিকপ্টার থেকে এই গর্তটি পর্যবেক্ষণ করলেও এবার রাশিয়ার গবেষকেরা গর্তটির কাছে গিয়ে এর গভীরতা মাপার কাজটি করেছেন।তারা জানিয়েছেন, রহস্যময় এই গর্তটির গভীরতা খুব বেশি নয়। এটি সর্বোচ্চ৩০০ ফুট বা ৭০ মিটার পর্যন্ত গভীর হতে পারে। এর নিচে বরফের লেক বা হ্রদরয়েছে। এই বরফ হ্রদে গর্তের গা বেয়ে পানির ধারা বয়ে যাচ্ছে। সাইবেরিয়ানটাইমসে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.