কতো মানুষ কতো কিছু করে তাদের কিছু হয় না…

 

স্টাফ রিপোর্টার: এক কন্যার জননী লিপা খাতুন খানেকটা ক্ষোভের সাথেই বললেন, ‘কতো মানুষ কতো কিছু করে তাদের কিছু হয় না, আমরা কিছু করলাম কি করলাম না, অমনি আটকে এখন কতো কিছুই না বলা হচ্ছে। সালিস হচ্ছে।’ আর আরিফ? তিনি দু কন্যার জনক। লিপি তার প্রতিবেশী সুবাদে ভাবী। আরিফ অবশ্য ভাবীর সাথে দৈহিক সম্পর্কের কথা সরাসরি অস্বীকার করে বলেছেন, কিছুই করিনি। অমনি ধরে ঘরে আটকে এখন সালিস করা হচ্ছে।

লিপা খাতুন চুয়াডাঙ্গা গাইদঘাট ঠাণ্ডুর মোড়পাড়ার বাসিন্দা শফিকুল ইসলামের স্ত্রী। আরিফ প্রতিবেশী মৃত ইউসুফ আলীর ছেলে। গতপরশু সোমবার রাত আনুমানিক সাড়ে আটটার দিকে লিপা খাতুনের স্বামী দুজনকে লিপা খাতুনের খড়ির ঘরে একসাথে পেয়ে আটক করে। লিপা খাতুন বলেছে, এক সাথে নয়, আমি ছিলাম কলপাড়ে। আর আরিফ ছিলো খড়ির ঘরের দিকে। আর স্বামী শফিকুল গিয়েছিলো নামাজ পড়তে। নামাজ পড়ে এসে কলপাড়ে আমাকে দেখেই খড়ির ঘরের দিকে লাইট মারতেই ধরা পড়ে আরিফ। অভিযোগ তোলা হয় আপত্তিকর কাজে লিপ্ত হওয়া। এ নিয়ে গ্রামে কতো কিছুই তো হচ্ছে।

গতকাল সন্ধ্যায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দুজনকে তাদের নিজ নিজ বাড়ির ঘরে আটকে রাখা ছিলো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *