ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমস প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ থেকে ইবির দুশিক্ষার্থী মনোনীত

 

ইবি প্রতিনিধি: আগামী ৩-১৫ জুলাই দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়াংজুতে অনুষ্ঠিতব্য ওয়ার্ল্ড ইউনির্ভাসিটি গেমস প্রতিযোগিতায় কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) দুশিক্ষার্থী মনোনীত হয়েছেন। মনোনীত দুশিক্ষার্থী হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের তাসলিমা আক্তার মনি ও ফিরোজ হোসেন। ওয়ার্ল্ড ইউনির্ভাসিটি গেমস প্রতিযোগীতায় ইবির ওই দুই শিক্ষার্থী বাংলাদেশ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মনোনীত হয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা বিভাগসূত্রে জানা যায়, আগামী ৩-১৫ জুলাই দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়াংজুতে ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমস প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। এ প্রতিযোগিতায় ১৯৩টি দেশের মোট ১৩ হাজার অ্যাথলেট প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করবেন। বাংলাদেশ থেকে তাসলিমা আক্তার মনি ও ফিরোজ হোসেন এ প্রতিযোগিতায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। তারা আগামী ১ জুলাই দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্দেশে রওনা দেবে। তাসলিমা আক্তার মনি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী।

অপরদিকে ফিরোজ হোসেন একই বিভাগের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। তাসলিমা আক্তার দক্ষিণ কোরিয়ায় অনষ্ঠিতব্য অ্যাথলেট প্রতিযোগিতায় লং ও স্প্রিং জাম্পে অংশগ্রহণ কবে। তাসলিমা আক্তার মনি বলেন, ‘২০০৬-২০১০ সাল পর্যন্ত সে মোট ২০টি স্বর্ণপদক ও ২০১২ সালে একটি স্বর্ণপদক লাভ করেছে। এছাড়া তার ১০টি রৌপ্য পদকও রয়েছে। তাসলিমা আরও জানায়, ওয়ার্ল্ড অ্যাথলেট প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পেরে তার খুব ভালো লাগছে। বিশেষ করে দেশের হয়ে খেলতে পেরে সে গর্বিত বলে জানায়। তাসলিমা বলেন, আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে এ প্রতিযোগিতায় স্বর্ণপদক লাভ করা। এজন্য আমি আপ্রাণ চেষ্টা করে যাবো। তাসলিমার বাড়ি গাইবান্ধা জেলার বোয়ালিয়ায়। তার পিতার নাম আব্দুল হাই ও মাতা মাজেদা বেগম। তারা একভাই ও দুবোন।

এদিকে আরেক অংশগ্রহণকারী ফিরোজ হোসেন ওয়ার্ল্ড অ্যাথলেট প্রতিযোগিতায় দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশগহণ করবে। সে জানায়, তার জাতীয় পর্যায়ে ৫টি স্বর্ণপদক, ৪টি রৌপ্য পদক ও ৩ টি ব্রোঞ্জ পদক রয়েছে। ফিরোজের বাসা রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলায়। তার পিতার নাম আকবর হোসেন ও মাতা আম্বিয়া বেগম। ফিরোজ বলেন, ‘আমি দেশের হয়ে বিদেশের মাটিতে খেলার জন্য মনোনীত হয়েছি এতো বড় পাওয়া। মনপ্রাণ দিয়ে দেশের জন্য কিছু করার চেষ্টা আমার সবসময় থাকবে। আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. শাহজাহান মণ্ডল বলেন, ‘আমার বিভাগের দুশিক্ষার্থী দেশের হয়ে বিদেশের মাটিতে খেলবে এটা অনেক আনন্দের। আমি চাই, তারা ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি গেমস প্রতিযোগীতায় কৃতিত্বেও স্বাক্ষর রাখুক। খেলাধূলার সুবিধার্র্থে বিভাগের পক্ষ থেকে তাদের জন্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে বলে তিনি জানান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক মো. সোহেল বলেন, ‘তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্যদিয়ে বাছাই করা বাংলাদেশ থেকে তাজলিমা আক্তার মনি ও ফিরোজ হোসেন ওয়ার্ল্ড গেমস প্রতিযোগিতায় অংশগ্রণের সুযোগ পেয়েছে। আমি ব্যক্তিভাবে চাই, তারা এ প্রতিযোগিতায় অনেক ভালো কিছু করুক।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *