একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন : খুলনা বিভাগের ৩৬ আসনে বিএনপির প্রার্থী ৯২ জন

স্টাফ রিপোর্টার: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য প্রায় এক যুগ ক্ষমতার বাইরে থাকা দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি এবার আগেভাগেই দলের সম্ভাব্যপ্রার্থীদের একটি প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করেছে। এ নিয়ে দলের মধ্যেও বিরাজ করছে চাঙাভাব। এলাকায়ও শুরু হয়েছে নেতাদের নির্বাচনী তৎপরতা। একাধীক সংবাদপত্রে এ ধরণের প্রতিবেদন প্রকাশিত হলেও কেউ কেউ বলেছেন, বিএনপির অভ্যন্তরিণ কন্দল জিয়ে রাখতেই বিএনপি বিরোধীদের অপপ্রচারই হলো এ প্রতিবেদন প্রকাশের অংশ। যা সুক্ষ্ম চক্রান্তেরই প্রকাশ।

সম্ভাব্য এসব প্রার্থীদের নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদনের এপর্বে থাকছে খুলনা বিভাগের ১০ জেলার ৩৬টি সংসদীয় আসনের তালিকা। চুয়াডাঙ্গা-১ (আলমডাঙ্গা ও চুয়াডাঙ্গা সদরের কিছু অংশ) : বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, সদস্য মো. শরিফুজ্জামান শরিফ ও লে. ক. (অব.) কামরুজ্জামান। চুয়াডাঙ্গা-২ (দামুড়হুদা, জীবননগর ও সদরের বাকি অংশ) : জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহামুদুল হাসান খাঁন বাবু ও সদস্য মো. মোখলেছুর রহমার টিপু তরফদার। ঝিনাইদহ-১ (শৈলকূপা) : সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল ওহাব, খুলনা বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ডু ও বিএনপির মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান। ঝিনাইদহ-২ (হরিনাকুন্ডু ও সদরের কিছু অংশ) : বিএনপির একক প্রার্থী জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ মশিউর রহমান। ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর) : কোটচাঁদপুর থানা বিএনপির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সহ-সম্পাদক কণ্ঠশিল্পী মনির খান, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক আমিরুজ্জামান খান শিমুল, সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস কাজল ও মহেশপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোমিনুর রহমান মোমিন। ঝিনাইদহ-৪ (কালীগঞ্জ ও সদরের বাকি অংশ) : সাবেক সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান বেল্টু ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ। মেহেরপুর-১ (সদর ও মুজিবনগর) : একক প্রার্থী সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সভাপতি মাসুদ অরুণ। মেহেরপুর-২ (গাংনী) : সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন ও সহসভাপতি জাবেদ মাসুদ মিলটন। কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) : সাবেক এমপি উপজেলা বিএনপির সভাপতি রেজা আহমেদ বাচ্চু ও জেলা বিএনপির সদস্য আলতাফ হোসেন। কুষ্টিয়া-২ (ভেড়ামারা ও মিরপুর) : সাবেক এমপি অধ্যাপক শাহিদুল ইসলাম ও দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রাকিব রোফ চৌধুরী।  কুষ্টিয়া-৩ (সদর) : জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন ও স্থানীয় নেতা ড. তালাত কোরেশী। কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী ও খোকশা) : সাবেক এমপি জেলা বিএনপির সভাপতি মেহেদি হাসান রুমি এবং সাবেক পৌর মেয়র নুরুল ইসলাম প্রামাণিক। খুলনা-১ (বটিয়াঘাটা ও দাকোপ উপজেলা) : এ আসনে বিএনপির প্রাথমিক প্রার্থীর তালিকায় আছে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমির এজাজ ও স্থানীয় বিএনপি নেতা লাতিফুর রহমান লাবু। খুলনা-২ (সদর থানা ও সোনাডাঙ্গা) : মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু ও আরেক সাবেক এমপি আলী আজগর লবী।  খুলনা-৩ (খালিশপুর, দৌলতপুর ও খানজাহান আলী থানা) : খুলনা মহানগর বিএনপির কোষাধ্যক্ষ এসএম আরিফুর রহমান মিঠু, সাবেক ছাত্রনেতা রফিকুল ইসলাম বকুল ও নির্বাহী কমিটির সদস্য কাজী সেকেন্দার ডালিম। খুলনা-৪ (রূপসা, তেরখাদা ও দিঘলিয়া) : বিএনপির তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, আইটি বিষয়ক সম্পাদক শাহ কামাল তাজ ও জেলা সভাপতি শফিউল আলম মানা। খুলনা-৫ (ডুমুরিয়া ও ফুলতলা) : বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. মামুন রহমান, সাবেক এমপি গাজী আব্দুল হক ও উপজেলা নেতা খান আলী মুনসুর। খুলনা-৬ (কয়রা ও পাইকগাছা) : কয়রা থানা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট মোমরেজুল ইসলাম ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মনিরুজ্জামান মন্টু। বাগেরহাট-১ (চিতলমারী, মোল্লাহাট ও ফকিরহাট) : সাবেক এমপি জেলা বিএনপি বর্তমান কমিটির উপদেষ্টা শেখ মুজিবর রহমান ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাড. সেখ ওয়াহিদুজ্জামান দিপু।  বাগেরহাট-২ (সদর ও কচুয়া) : জেলা বিএনপির সভাপতি এমএ সালাম। বাগেরহাট-৩ (রামপাল ও মংলা) : জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ড. ফরিদুল ইসলাম। বাগেরহাট-৪ (মোরেলগঞ্জ ও শরণখোলা) : জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি কাজী খায়রুজ্জামান শিপন ও সহ-সভাপতি এমএ খালেক। যশোর-১ (শার্শা) : স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সাধারণ সম্পাদক মহাসিন কবির, জেলার সহ-সভাপতি শামসুর রহমান, শার্শা উপজেলা সভাপতি খায়রুজ্জামান মধু ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান জহির। যশোর-২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা) : ঝিকরগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান সাবিরা নাজমুল মুন্নী, জেলার সহ-সভাপতি অ্যাড. মো. ইসহক, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান, চৌগাছার সভাপতি জহুরুল ইসলাম ও ঝিকরগাছার সাধারণ সম্পাদক মর্তুজা এলাহী টিপু। যশোর-৩ (সদর) : বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম অসুস্থতাজনিত কারণে প্রার্থী না হলে তার স্ত্রী নার্গিস বেগম অথবা পুত্র, বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত ও জেলার সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু।
যশোর-৪ (অভয়নগর-বাঘারপাড়া) : বাঘারপাড়া সভাপতি বিএনপি টিএস আইয়ুব, অভয়নগর বিএনপি সভাপতি ফারাজী মতিয়ার রহমান, বাঘারপাড়ার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দিকী। যশোর-৫ (মনিরামপুর) : মণিনরামপুর বিএনপির সভাপতি অ্যাড. শহীদ ইকবাল, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মুসা, জিয়া পরিষদের যুগ্ম মহাসচিব শরিফুজ্জামান খান। যশোর-৬ (কেশবপুর) : বিএনপির সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অমলেন্দু দাস অপু, কেশবপুরের সভাপতি আবুল হোসেন আজাদ, স্বেচ্ছাসেবক দল সিনিয়র সহ-সভাপতি মুস্তাফিজুর রহমান ও সাবেক পৌর মেয়র আব্দুস সামাদ বিশ্বাস।
মাগুরা-১ (শ্রীপুর ও সদরের কিছু অংশ) : জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কবির মুরাদ, জেলার সদস্য মনোয়ার হোসেন খান ও স্থানীয় নেতা ইকবাল আক্তার খান। মাগুরা-২ (মহম্মদপুর ও সদরের বাকি অংশ) : বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সলিমুল হক। সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) : সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিব ও তালা উপজেলা ছাত্র দলের প্রাক্তন সভাপতি মো. বদিরুজ্জামান বদরু।
সাতক্ষীরা-২ (সাতক্ষীরা সদর) : জেলা বিএনপির সভাপতি রহমাতুল্লাহ পলাশ, সহ-সভাপতি আব্দুল আলীম ও পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি।
সাতক্ষীরা-৩ (দেবহাটা, আশাশুনি ও কালীগঞ্জের চারটি ইউনিয়ন) : কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা. শহীদুল আলম, সাবেক এমপি আলহাজ কাজী আলাউদ্দিন ও বিএনপি নেতা অ্যাড. বরুন বিশ্বাস। সাতক্ষীরা-৪ (শ্যামনগর ও কালীগঞ্জের আটটি ইউনিয়ন) : সাবেক এমপি কাজী আলাউদ্দিন ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সৈয়দ ইফতেখার আলী। নড়াইল-১ (কালিয়া ও সদরের কিছু অংশ) : জেলা বিএনপির সভাপতি বিশ্বাস জাহাঙ্গীর ও সাবেক ছাত্র নেতা গৌতম মিত্র। নড়াইল-২ (লোহাগড়া ও সদরের বাকি অংশ) : সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আ. কাদের শিকদার, সাবেক পৌর মেয়র জুলফিকার আলী ম-ল ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *