উন্নত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার অন্তরায় অপশক্তিকে শক্ত হাতে প্রতিহত করতে হবে

গুজব ছড়িয়ে অরাজকতা সৃস্টিকারীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে ইমাম শিক্ষকদের সাথে মতবিনিময়কালে এমপি টগর

দর্শনা অফিস: সম্প্রতি চুয়াডাঙ্গার বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি, অপহরণ ও শিশু পাচারের গুজব ছড়িয়েছে। মনগড়া গুজব ছড়িয়ে শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করার পায়তারার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে একটি কুচক্রী স্বার্থনেষী মহল। প্রচারের জন্য ব্যবহার করছে পবিত্র ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মসজিদের মাইক। অরাজকতা সৃষ্টির অপচেষ্টা করে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার লক্ষ্যে যারা নেপথ্যে থেকে কাজ করছে তাদের চিহ্নিত করণে পুলিশ প্রশাসন রয়েছে শক্ত অবস্থানে। অপপ্রচারকারিদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বর্তমান সরকার যখন দেশের উন্নয়নের মহাসড়কে, ঠিক তখন স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি সরকারের এ উন্নয়নের ধারাকে নস্যাতের নীলনকশা তৈরি করছে। এ নকশার অংশ হিসেবেই শান্তপ্রিয় মানুষগুলোর মনে ভুল ধারণা ও আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। ইতোমধ্যেই শান্তিপ্রিয় সচেতন মানুষ গুজব প্রমাণিত করেছে। তবুও গুজব রটাতে থেমে নেয় সরকারবিরোধীরা। সাধারণ মানুষকে সচেতন ও অরাজকতাকারিদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করার লক্ষ্যে দামুড়হুদা উপজেলার সকল জামে মসজিদের পেশ ইমাম ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের নিয়ে মতবিনিময়সভার আয়োজন করেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর দুটোর দিকে দর্শনা অডিটেরিয়াম কাম কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত দামুড়হুদা উপজেলার সকল জামে মসজিদের পেশ ইমাম ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের নিয়ে মতিবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাম্প্রদায়িক শক্তির অপপ্রচার ও দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে ইমাম ও শিক্ষকদের করণীয় শীর্ষক মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগর বলেছেন, দেশ যখন উন্নয়নের মহাসড়কে, জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশবাসী যখন মহাসুখে শান্তি বসবাস করছে, ঠিক তখনি, শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করে তুলতে একাত্তরের স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি আবারো মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে। তারা সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার পাঁয়তারায় মেতেছে। দেশের মানুষ সচেতন বলেই তাদের অপপ্রচার ও অহেতুক অরাজকতাকে রুখে দিয়েছে। ইমাম ও শিক্ষকরা সমাজের গুরুত্পূর্ণ দায়িত্ব পালন করে থাকেন। তাই মানুষের মনের ভুল ধারণ দুরিকরণ করে সঠিক তথ্য প্রচারের ব্যপারে ইমাম ও শিক্ষকদের ভূমিকা অপরিসীহিম। মানুষের কল্যানকর যেকোন ব্ষিয়ে মসজিদ থেকে ইমামদের সঠিক দিক নির্দেশনা দেয়া জরুরী বলে আমি মনে করি। তাই এখান থেকে শফত নিই, অরজকতাকারি ও গুজবচক্রের সদস্যরা যে দলের হোকনা কেন, তাদের চিহ্নিত করে আইনের হাতে তুলে দিতে হবে। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক জিয়া উদ্দিন সভাপতিত্বের ভাষনে বলেন, বাংলাদেশকে নিয়ে গর্ব করার অনেক কিছুই রয়েছে। বিশ্ব দরকারে বাংলাদেশ এখন অনেক এগিয়ে। সরকারের অর্জন ও ভালো দিকগুলো মানুষের মধ্যে তুলে ধরতে ইমাম ও শিক্ষকদের কাজ করা উচিত। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা-৬ বডার গার্ডের পরিচালক লেঃ কর্নেল রাশিদুল আলম বলেছেন, সম্প্রতি যে গুজব ছড়িয়েছে তা প্রতিহত করার পাশপাশি সমাজকে কলুষমুক্ত করতে মাদক মুক্তকরণের কোনো বিকল্প নেই। তাই ইমাম ও শিক্ষকদের কাছে আমার আহ্বান, মসজিদ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মাদকের ক্ষতিকারক দিকগুলো নিয়ে আলোচনা করা খুবই জুরুরি।

চুয়াডাঙ্গা জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাদুল ইসলাম আজাদ বলেন, সময়পোযোগী এ ধরনের আয়োজনের জন্য এমপি আলী আজগার টগর নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবর রহমান সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন আমারণ। তারই সুযোগ্য উত্তসুরি দেশরত্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষ পরিচালনা সাম্প্রদায়িকতা রুখতে সক্ষম হয়েছে দেশের মানুষ। দেশ আজ উন্নয়নের স্বর্ণ শিখড়ে। তাই আসুন, যারা সরকারের উন্নয়ন নস্যাতের মিছে পাঁয়তারায় মেতেছে তাদের চিহ্নিত করে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলি। সে ক্ষেত্রে ইমাম ও শিক্ষকদের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করতে হবে। চুয়াডাঙ্গা জেলা আ.লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান জাকারিয়া আলমের উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন দর্শনা সকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শহিদুল ইসলাম, চুয়াডাঙ্গা সিনিয়র সহকারী পুলিশ কলিমুল্লাহ, চুয়াডাঙ্গা জেলা ইসলামী ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক এবিএম রবিউল ইসলাম, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রফিকুল হাসান, দামুড়হুদা উপজেলা আ.লীগের সভাপতি সিরাজুল আলম ঝন্টু। এছাড়া বক্তব্য রাখেন, দর্শনা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পেশ ইমাম মুফতি গোলাম কিবরিয়া, দর্শনা পৌর ইমাম সমিতির সভাপতি হাজি মাও. নুরুল ইসলাম, মাও. শফিকুল ইসলাম, শিক্ষক আলাউদ্দিন। উপস্থিত ছিলেন- দর্শনা সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ আজিজুর রহমান, দর্শনা পৌর আ.লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম, আ.লীগ নেতা নজির আহম্মেদ, আলী মুনসুর বাবু, গোলাম ফারুক আরিফ, ইউপি চেয়ারম্যান শাহ এনামুল করিম ইনু, শফিকুল আলম, বিল্লাল হোসেন, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক শফিউল কবির ইউসুফ, যুগ্মআহ্বায়ক আ. হান্নান ছোট, হযরত আলী, শেখ আসলাম আলী তোতা, মোস্তাফিজুর রহমান মতি, ছাত্রলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম ববি, নাহিদ পারভেজ, তোফাজ্জেল হোসেন তপু, আলামিন, লোমান, অপু সরকার, রায়হ্না, মোহাম্মদ, প্রভাত প্রমুখ।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *