ইরানসহ তিনজনই তিন দিনের পুলিশি রিমান্ডে

হামলায় হাত হারানো আবু জাফর মন্টু রাজশাহী মেডিকেলে চিকিৎসাধীন

স্টাফ রিপোর্টার: ধারালো অস্ত্র দায়ের উপর্যুপরি কোপে ক্ষতবিক্ষত আবু জাফর মন্টুকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে। অপরদিকে তার ওপর হামলা মামলায় গ্রেফতারকৃত তিন আসামি ইরান, রাব্বি ও জিতুকে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ।

2nd2

সামান্য কিছু পাওনা টাকা নিয়ে সৃষ্ট বিরোধের জের ধরে গতপরশু সকাল ১০টার দিকে চুয়াডাঙ্গা বুজরুকগড়গড়ি শান্তিপাড়া স্কুলমোড়ে ঘটে তুমুল সংঘর্ষ। দু’পক্ষের এক পক্ষ বহিরাগতদের ডেকে নিয়ে আবু জাফর মন্টুর ছেলে লাল্টুর চায়ের দোকানে হামলা চালায়। এ সময় লাল্টুর পিতা ছুটে গেলে তাকে ধারালো অস্ত্র দা দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়। একটি হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। সাথে সাথে তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ওই দিনই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। রাজশাহী নেয়ার আগে তার জবানবন্দিও রেকর্ড করা হয়। পুলিশ অভিযান চালিয়ে চুয়াডাঙ্গা মহিলাকলেজপাড়ার সিরাজের ছেলে ইরান (২২), পলাশপাড়ার বাদশার ছেলে রাব্বি ও একই পাড়ার লাভলুর ছেলে জিতুকে গ্রেফতার করে। গতকাল এদেরকে আদালতে সোপর্দ করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানান মামলার তদন্তকারী  কর্মকর্তা। বিজ্ঞ আদালত শুনানি শেষে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তিনজনকেই চুয়াডাঙ্গা সদর থানা কাস্টডিতে নিয়ে শুরু হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদ। এ মামলার অন্যতম আসামি শান্তিপাড়ার বাবু ও তার ছেলে বাপ্পি আত্মগোপন করে আছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। এই বাবুর সাথেই বুজরুকগড়গড়ি বনানীপাড়ার (বুদ্ধিমানপাড়া) আবু জাফর মন্টুর ছেলে লাল্টুর পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের সূত্রপাত ঘটে। আবু জাফর মন্টু চুয়াডাঙ্গা জেলা জজকোর্টের অর্ডারলি পড়ে চাকরি করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *