ইন্দোনেশিয়ায় অগ্ন্যুৎপাতে অসংখ্য মানুষ ঘরছাড়া

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ আগ্নেয়গিরি উদগীরণ হয়েছে। ফলে প্রায় ২ লাখ মানুষকে তাদের বসতবাড়ি ছাড়তে হচ্ছে। দেশটির পূর্ব জাভা উপকূলে মাউন্ট কেলাদ আগ্নেয়গিরি থেকে নির্গত লাভার কারণে ইতোমধ্যে হাজার হাজার মানুষ বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র পাড়ি জমিয়েছেন। নির্গত লাভা আশপাশের প্রায় ৮০ মাইল পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়েছে। এর ভয়াবহতা এতোই বেশি যে কোনো কোনো শহরে ৪ সে.মি পর্যন্ত ভস্মে (অ্যাশ) ঢাকা পড়েছে। প্রাকৃতিক এ দুর্যোগের কারণে দেশটির তিনটি প্রধান বিমানবন্দর সুবায়া, সোলো, জোগিকার্তা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে কর্তৃপক্ষ। সরকারের পক্ষ থেকে গত বৃহস্পতিবার অগ্ন্যুপাতের একঘণ্টা আগে ৩৬টি গ্রাম থেকে লোকজনকে সরে যেতে বলা হয়ে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুজন মারা গেছেন। ইন্দোনেশিয়ার ভলকানো অ্যান্ড জিওলজি এজেন্সির প্রধান হেন্ড্রাসটো বলেন, ভয়াবহতার মাত্রা ধীরে ধীরে কমে আসছে। ১৯৯০ সালে একই কারণে প্রায় অর্ধশত মানুষ নিহত হয়। ১৯৯১ সালে ৫ হাজার লোক মারা যান। ইন্দোনেশিয়া  ভূ-তাত্ত্বিকভাবে বেশ কয়েকটি ফল্ট লাইনের ওপর অবস্থিত। সেখানে ১৩০টির বেশি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *