আলমডাঙ্গা ব-বিলের ৫ কৃষকের বেগুনক্ষেত ঝাল ও তামাক বীজতলা ঘাষ মারা বিষ ইউনিয়া ও লবন ছিটিয়ে বিনষ্ট করার অভিযোগ

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গা ব-বিল গ্রামের ৫ কৃষকের তামাকের বীজতলা, ঝাল ও বেগুনক্ষেতে ঘাষ মারা বিষ, ইউনিয়া ও লবন ছিটিয়ে বিনষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে। ইটভাটার নিকটবর্তী ওই জমি ভাটামালিকের নিকট লিজ দিতে রাজি না হওয়ায় প্রতিহিংসাবশত এমন ঘৃন্য আচরণ করা হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা দাবি করেছেন।
সরেজমিন ঘুরে জানা গেছে, আলমডাঙ্গার ব-বিল গ্রামের মৃত বদো মুন্সির ছেলে ইউনুস মুন্সির ১২ কাঠা ঝালক্ষেত, মৃত আবুল মুন্সির ছেলে হাকিম মুন্সির ১২ কাঠা বেগুনক্ষেত, মৃত সিরাজ মুন্সির ছেলে কামরুজ্জামান টোকন, মৃত মওলা বক্সের ছেলে জাকের ম-ল ও মৃত মওলা কামারের ছেলে ইসলাম শেখের তামাকের বীজিতলায় গতপরশু রাতে কে বা কারা ঘাষ মারা ওষুুধ ও লবন-ইউরিয়া মিশিয়ে ছিটিয়েছে। ফলে ঝাল-বেগুনক্ষেত ও প্রায় ১ বিঘা জমির তামাকের বীজতলা পুড়ে নষ্ট হয়ে গেছে। কে বা কারা ওই ৫ কৃষকের এমন ক্ষতি করেছে তা চোখে না দেখলেও ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা তাদের ক্ষেতের পাশের এমএসবি ব্রিকসের মালিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন।
ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা অভিযোগে জানিয়েছেন, ওই ইটভাটা মালিক তাদের নিকট থেকে জমি লিজ নেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। কিন্তু কৃষকরা রাজি হননি। সে কারণেই ইটভাটা মালিক এমন ঘৃণ্য কাজ করেছেন। মালিকের নির্দেশে ইটভাটার শ্রমিক একই গ্রামের হামিজ উদ্দীনের ছেলে ইমরান গ্রামের বেল্টুর নিকট থেকে ইউরিয়া ও লবণ কিনে নিয়ে গিয়ে এই অপকর্ম করেছে বলে তারা দাবি করেছেন।
এদিকে, দোকানি বেল্টু জানিয়েছেন, তার দোকান থেকে গত বুধবার দিনের বেলা ইটভাটার শ্রমিক ইমরান ৬ কেজি ইউরিয়া সার ও ৪ কেজি লবণ কিনেছিলেন। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *