আলমডাঙ্গা পৌরসভায় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতনভাতা ও পেনশন প্রাপ্তির দাবিতে ৩ দিন কর্মবিরতির ২য় দিন পালন

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসেসিয়েশনের আহ্বানে সারাদেশের সকল পৌরসভার পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতনভাতা ও পেনশন প্রাপ্তির দাবিতে ৩ দিন কর্মবিরতির ২য় দিন পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন করা হয়েছে। আলমডাঙ্গা পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের অংশগ্রহণে ২৯ জানুয়ারি সকাল ৯টা হতে বিকেল ৫টা পর্যন্ত পৌরসভা কার্যালয়ে ২য় দিন পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন করা হয়। ওই কর্মবিরতি পালন অনুষ্ঠানে আলমডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র হাসান কাদির গনুসহ পৌর পরিষদের সকল কাউন্সিলরগণ পূর্ণ সমর্থন দেন। পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন অনুষ্ঠানে আলমডাঙ্গা পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সরকারি কোষাগার থেকে বেতনভাতা প্রদানের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় দৃষ্টি কামনা করেন। কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় দৃষ্টি কমনা করে জানান, পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দিন রাত অক্লান্তভাবে পরিশ্রম করে জনগণের সেবা প্রদান করে থাকে, কিন্তু তারা মাসের পর মাস কোনো বেতন না পেয়ে অনাহারে অধ্যাহারে দিন যাপন করেন, তাদের সন্তানদের স্কুলের ফিস দিতে পারে না, বাজারে কোনো দোকানদার তাদের বাকিতে সদায় দিতে চায় না, পরিবারের মানুষের চিকিৎসার জন্য ওষুধ ক্রয় করতে পারে না এমনকি অবসরে যাওয়ার সময় সম্পূর্ণ খালি হাতে তাদের অবসর গ্রহণ করতে হয়, যাহা সত্যিকার অর্থেই অমানবিক। তাই বেতনভাতা ও পেনশনের দাবি পূরণের জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা মানবতার নেতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নিকট আকুল আবেদন করেন, যাতে তাদের দাবি পূরণ হয়। কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বর্তমান সরকারকে জানান এটা তাদের ভাতের দাবি, পেটের দাবিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট প্রাণের ক্রন্দন, আর এ ক্রন্দনে যদি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সদয় দৃষ্টি না দেন তাহলে বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসেসিয়েশনের আহ্বানে আগামীতে ঘোষিত আরও কঠোর আন্দোলনসহ যেকোনো শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করতে রাজপথে নামতে বাধ্য হবে। তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন মানবদরদী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩২ হাজার ৫০০জন পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পরিবার পরিজনের অসহায় মানুষগুলোর মুখের দিকে তাকিয়ে রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতনভাতা ও পেনশন প্রদানের আদেশ দিবেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *