আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের অভিযান : পিতাসহ পুত্রকে যৌতুক মামলার মামলায় গ্রেফতার

আলমডাঙ্গা ব্যরো: আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ গতপরশু রাতে অভিযান চালিয়ে জীবননগর উপজেলার রাজাপুর গ্রামের যৌতুক মামলার আসামি শাহিন ও তার পিতা আমিনুল ইসলাম আমিনকে গ্রেফতার করেছে।

জানা গেছে, জীবননগর উপজেলার রাজাপুর গ্রামের আমিনুল ইসলামের ছেলে শাহিন ৪ বছর আগে আগে আলমডাঙ্গা উপজেলার অনুপনগর গ্রামের আবু তালেবের মেয়ে লতা খাতুনকে বিয়ে করে। তাদের সংসারে দেড় বছরের একটি মেয়েও হয়। হটাত করে শাহিন বাংলালিংক সার্ভিস পয়েন্ট কাস্টম ম্যানেজারের  চাকরি পায়। তাকে বাংলালিংক অফিস কার্পাসডাঙ্গা সার্ভিস পয়েন্টের ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব দেয়। সে অফিস করাকালে প্রায়ই রাতে বাড়ি ফিরতো না। মাঝে মাঝে বাড়িতে গেলে এনিয়ে তার সাথে কথা কাটাকাটি হতো। সে থেকে শাহিন তার স্ত্রীর সাথে খারাপ আচরণ করতে থাকে। বাধ্য হয়ে  শাহিনের স্ত্রী লতা খাতুন পিতার বাড়ি চলে আসে। গত কয়েক মাস ধরে শাহিন তার স্ত্রী সন্তানের কোনো খোঁজখবর নেয় না। বিয়ের কাবিন নামায় ৫ হাজার ১ টাকা দেনমোহর থাকায় খুব সহজেই শাহিন কোর্ট থেকে তার স্ত্রীকে তালাক দেয়। শাহিনের স্ত্রী কোনো উপায়ন্তর না পেয়ে তার স্বামী ও শ্বশুরের বিরুদ্ধে আলমডাঙ্গা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

গতপরশ রাতে থানার এসআই আনিচ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে জীবননগর উপজেলার রাজাপুর গ্রামের বাংলালিংক সার্ভিস পয়েন্ট কাস্টম ম্যানেজার শাহিন ও তার পিতা আমিনুল ইসলামকে গ্রেফতার করে। গতকালই তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *