আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেলো পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী মুক্তা

 

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেলো সাহেবপুর গ্রামের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী মুক্তা।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার গাংনী ইউনিয়নের সাহেবপুর গ্রামের লাভলুর মেয়ে মুক্তা খাতুন পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। সম্প্রতি তার বিয়ে ঠিক হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার ছিলো বিয়ের দিন। বিষয়টি জানতে পেরে আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনজুমান আরা বিয়ে বন্ধ করার লক্ষ্যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। তারপরও বাল্যবিয়ে দেয়ার জন্য নানাভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অনুরোধ ও সুপারিশ করা হয়। কিন্তু তার দৃঢ় মনোভাবের কারণে বাল্যবিয়ে দেয়া সম্ভব হয়নি। শেষ পর্যন্ত বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে ওই স্কুল ছাত্রী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *