আলমডাঙ্গার প্রাগপুর গ্রামে নিজ জামাইকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে শ্বশুর

 

আলমডাঙ্গা ব্যরো: আলমডাঙ্গার প্রাগপুর গ্রামের হাসানের মেয়ে লাবণী খাতুন প্রতিবেশী মুন্নালের ছেলে উজ্জ্বলের সাথে প্রেম করে বিয়ে করে প্রায় চার বছর আগে। প্রায় চার বছর বিয়ে হলেও হাসান এ বিয়ে মেনে নেয়নি। মাঝে মধ্যে এ নিয়ে উভয়পক্ষের ভেতর রশি টানাটানি চলে আসছিলো। গত দু মাস আগে হাসান তার মেয়ে ও জামাই উজ্জ্বলকে মেনে নেয়। গতকাল দুপুরে হঠাৎ করে শ্বশুর হাসান আলী তার প্রতিবেশী জামাইয়ের বাড়ির ভেতর ঢুকে রামদা দিয়ে তার জামাই উজ্জ্বলকে এলোপাতাড়ি কুপাতে থাকে। উজ্জ্বল মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্থানীয় জনগণ তাকে উদ্ধার করে। এ সময় শ্বশুর হাসান পালিয়ে যায়। জামাই উজ্জ্বলকে তাৎক্ষণিকভাবে হারদী স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে রাজশাহী রেফার করেন। সুযোগ বুঝে একই গ্রামের কাশেমের জামাই উজ্জ্বলের বাড়ির একটি গরু গোপনে চুরি করে নিয়ে যাওয়ার পথে কুর্শা গ্রামের মাঠ থেকে কাশেমের জামাইকে ধরে আনা হয়। এ ঘটনায় গতকাল রাত নয়টার দিকে উজ্জ্বলের পিতা মুন্নাল বাদী হয়ে হাসানসহ চারজনকে আসামি করে একটি এজাহার দাখিল করেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published.