আত্মহত্যার সময় শাশুড়িকে বাঁচিয়ে পুত্রবধূ আত্মঘাতী

প্রতিবেশী বিধবার সাথে স্বামীর পরকীয়া : ধরাপড়তেই অশান্তির আগুন

 

খাইরুজ্জামান সেতু: প্রতিবেশী বিধবার সাথে স্বামীর পরকীয় পারভীনার সাজানো সংসারটা তছনছ হয়ে গেছে। অশান্তির আগুন দাউ দাউ করে জ্বলে ওঠার সাথে সাথে শাশুড়ি গলায় ফাঁস দিয়ে এবং পারভীনা বিষপান করে। পারভীনা মারা যায়। শাশুড়ি সুরাতন খাতুন অবশ্য বেঁচে গেছেন। ঘটনাটি ঘটে গতকাল বিকেল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সাতগাড়িতে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, চুয়াডাঙ্গা সাতগাড়ি হিজড়াপাড়ার নাজমুল হক নাজিমের সাথে আলমডাঙ্গা রামচন্দ্রপুরের মেয়ে পারভীনার বিয়ে হয়। বিয়ের পর দু কন্যা আসে। সুমির বয়স এখন ৮ বছর আর ছোট মেয়ে সুরাইয়ার বয়স ৩ বছর। পারভীনা তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। কয়েকদিন আগে স্বামী নাজিম তার প্রতিবেশী বিধবার সাথে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় ধরা পড়ে। বিষয়টি জানাজানি হলে সংসারে জ্বলে ওঠে অশান্তির আগুন। দফায় দফায় ঝগড়া বাধে। এরই এক পর্যায়ে গতকাল নাজিমের মা সুরাতন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার অপচেষ্টা চালায়। পারভীনাসহ প্রতিবেশীরা ছুটে গিয়ে উদ্ধার করে। পরে পারভীনা নিজেও বিষপান করে। তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। লাশ দ্রুত হাসপাতাল থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। পরে অবশ্য পুলিশ লাশ উদ্ধারের প্রক্রিয়া করে।

পারভীনার লাশ হাসপাতাল থেকে দ্রুত সাতগাড়িতে নেয়ার পর আগরবাতি হাতে নিয়ে প্রতিবেশীর ওই বিধবা মেয়েকেই ছুটতে দেখা যায়। একবার কান্নাকাটি, একবার অন্যদের সান্ত্বনা দিতে ব্যস্ত থাকা দেখে তার সম্পর্কে অনেকেই বিরূপ মন্তব্যও করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *